পাতা:আমিষ ও নিরামিষ আহার প্রথম খণ্ড.djvu/২৮৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


তৃতীয় অধ্যায়। నీ বেতের কচি লম্বা কাটি অথবা বেতেয় গাজ আনিম্ন তাহার উপরের পাতা খুলিয়া ফেল এবং ভিতরের কচি দণ্ডি বা শাসটা লইয়া, আধবিঘৎ লম্বা করিয়া কীট। এখন একেবারে পাঁচ ছয়টা একত্রে আঁটি বাধিয়া ভাতে ফেলিয়া দাও । তার পরে ভাত হইত্তে নামাইয়া তেল, মুন মাখিয়া থাও। বেত ভাতে থাইতে ঈষৎ তিত লাগে। ইহা পিত্ত প্রশমনকাল্পী। আসামে ইহা প্রচলিত খাদ্য। ১৩২। নারিকেল দিয়া কচু ও ওলের ভর্তা। উপকরণ।--পোড়া কচু তিন কাচ্চা, আদা সিকি তোলা, শুক্লা লঙ্কা তিন চার্টি, রসুন তিন চারি কোয়া, কাচা আম এক কাচী, সরিষা সিকি তোলা, নারিকেল এক বাচ্চা, মুন সিকি তোলা । প্রণালী।–একটি অস্তি কচু আনিয়া তাহার খোসা না ছাড়াইয়া, বড় বড় খণ্ডে বিভক্ত কর। দুই তিন খণ্ড ইহা হইতে লইয় পুড়াইতে দাও । পোড়া কচুগুলি ওজনে তিন কঁাচ্চাটাক হইবে। এইগুলি দুই উপায়ে পুড়াইতে পার: খণ্ড কচুগুলি এক নিবন্ত উনানের আগুনে ফেলিয়া পুড়াইতে পার অথবা কচুগুলির উপর খুব পুরু কাদা লেপিয়াও আগুনে পুড়াইতে পার ; কাদা লেপিয়া পুড়াইতে দিলে, কচু পুড়িতে প্রায় ঘণ্টা দেড় সময় লাগে এবং শুধু পুড়াইতে দিলে প্রায় মিনিট কুড়ি সময় লাগে। কীট বিধিয়া দেখিবে যে বেশ ভিতর পর্য্যন্ত সিদ্ধ হইয়াছে কি না ; না হইলে ফের আগুনে দিতে হইবে। কাদা লেপিয়া পুড়াইলেই দেখিয়াছি, অপেক্ষাকৃত আস্বাদ ভাল হয়। কচুর পোড়া