পাতা:আমিষ ও নিরামিষ আহার প্রথম খণ্ড.djvu/৩০০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


'సి't} আমিষ ও নিরামিষ আহার । দুষ্মানি ভর, পাচ ফোড়ন স্থআনি ভর, তেল এক ছটাক, মুন সিকি তোল, জল এক নোট । - প্রণালী – নটেশাকগুলির ঘাস, পোকা পাতা ইত্যাদি যাহা থাকে, বাছিয়া অনেকবার জল বদলাইয়া আছড়াইয়া ধুইবে। শাকে বালি, চুল প্রায়ই থাকে। কড়াতে তেল চড়াও ; লঙ্কা, সরিষা ও পাচ ফোড়ন ছাড় ; ফোড়ন হইয়া আসিলে, অর্থাৎ ফোড়নের চুড়চূড় শব্দ থামিয়া গেলে শাক ছাড় । নাড়িয়া চাড়িয়া মুন আর জল দাও । তার পরে ক্রমে জল মরিয়া গিয়া বেশ ভাজা ভাজা হুইলে, তবে নামাইবে। ইহা ভাজিতে প্রায় মিনিট বার লাগিবে। ১৪৬ ৷ শাক উচ্ছ ভাজা । প্রণালী।–শাক উচ্ছ ভাজ। আর বিশেষ করিয়া লিখিতে হইবে না। ভবে একটু লিখিবারও আছে । উচ্ছা আগে ভঞ্জিয় উঠাইবে । যে তেল থাকিৰে তাহাড়েই স্বার একটু ভেল ঢালিয়া (যদি কড়ায় কম তেল থাকে) ফোড়ন ছাড়িয়া, শাক ভাজা ভাজা করিৰে । পরে বাসনে ঢাঞ্জিং দিবার সময় একত্র মিশাইরা দিবে। ১৪৭ পটোল বিচিল্প নোনা মাস্লোয়া । উপকরণ –কুড়িটা বড় পাকা পটোলের বিচি, খাস ময়দা তিন ছটাক, শঙ্কেনী তিন কাচ্চা, দই তিন ছটাক, জল পীচষ্টাচ্চ, , আদা আধ তোলা, ঝাল কাচা লঙ্কা চার পাঁচটা, মুন সাধ তোলার কিছু বেশী, ঘি আধ পোয় । প্রণালী –টাটুকী বড় দেখিয়া পাকা পটোল মানিয়া, তাহার