পাতা:আমিষ ও নিরামিষ আহার প্রথম খণ্ড.djvu/৪১২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আমিষ ও নিরামিষ অtহর । وئ نoيمه শাকে মুনটুকু দিয়া ছাড়ি ঢাকিয়া রাখ। মাঝে মাঝে নাড়িয়া দিবে। প্রায় মিনিট পাচ পরে ইছার জল মরিয়া , গেলে বেগুনগুলি ঢালিয়া খুস্তি বা হীতার দ্বারা নাড়িতে থাকিবে। জল একেবারে শুকাইয়া গেলে নামাইবে । ইহা কাদা কাদা হইবে । ২৭৮ । হিঞ্চাশাকের চড়চড়ি । উপকরণ –হিঞ্চা এক ছটfক, বেগুন দেড় ছটাক, আলু আধ পোয়া, ঝিঙ্গ একটা, তেল এক ছটাক, মুন ছয় আনি ভর, হলুদ বাটা আধ তোলা (ছগির), সরিষা বাটা এক তোলা, জীরামরিচ বাট অtধ তোলা, শুক্লালঙ্কা চুটি, কঁচালঙ্ক দুটি, তিন ফোড়ন দুয়ানি ভর, মটর বড়ি আধ ছটাক, তেজপাত। একটি, আদা এক তোলা, জল দেড় পোয়া । প্রণালী।-হিঞ্চাশাকের ডাটাগুলি এক আঙ্গুল সমান লম্বা করিয়া কাটিয়া লও, তাহারি সঙ্গে যা দু একটা পাতা থাকিবে লইবে। বেশী পাতা লইবার আবশ্যক নাই। বেগুন ডুম ডুমা করিয়া কীট। আলুর খোসা ছাড়াইয়া ডুমা করিয়া বানাও। ঝিঙ্গার খোসা ছাড়াইয় বার চৌদ্দ থগু করিয়া বানাৎ , সব তরকারীগুলি ধুইয়া রাখ। কাঁচালঙ্কা চিরিয়া রাধ। হলুদ, সরিষা, জীরামরিচ ও একটি শুক্লালঙ্ক শিলে পিষিয়া রাথ । আদা আলাদা বাটিয়া রাখ । আধ পোয়াটাক জল দিয়া হিঞ্চা সিদ্ধ করিতে চড়াইয়া দাও । হাড়ি ঢাকিয়া রাখ মিনিট পাঁচ ছয় ধরিয়া ভাপে সিদ্ধ হইলে, নামাইয়া জল ঝরাইয়া রাখ । তেল চড়াইয় তাহাতে বড়িগুলি ভাজিয়া উঠাও । তেজপাত। ও শুক্লালঙ্কা ফোঁড়ন ছাড় । তারপরে তিনফোড়ন ছাড় । তিন