পাতা:আমিষ ও নিরামিষ আহার প্রথম খণ্ড.djvu/৪৩০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


woot; আমিধ ও নিরামিষ আহায় । সের, জীরামরিচ-বাটা এক তোলা, ধনে বাট এক তোলা, দুটি শুক্লা লঙ্কা বাটা, দুধ অtধ পোয়, চিনি আধ তোলা, ঘি এক ছটাক, জীরা সিকি তোলা, তেজপাত দুখানি, হিং উিন রতি, নারিকেল কোর এক ছটাক, ময়দা আধ তোলা, জুন আধ তেলি । প্রণালী।-কচুড়ীটি এক এক আঙ্গুলের সমান লম্বা করিয়া কাট। প্রত্যেক খণ্ডের ভাল করিয়া আঁশ বা খোসা ছাড়াইয়া ফেল। কচু ডাটির একেবারে গোড়ার কচুর দিকটা এবং আগার দিকের সরু অংশের খানিকট কাটয় ফেল। গোড়ার কচু বানাইয়া দিলে (দৈবtৎ ছ একটা ছাড়া) প্রায় সবেতেই মুখ ধরিয়া থাকে। কচু উঁাটি সাড়ে চারিপোয় জল দিয়া সিদ্ধ করিতে চচাষ্টয়া দাও । প্রায় কুড়িপচিশ মিনিট সিদ্ধ হইলে একটি বাশের চুবড়িতে চালিয়া ফেলিবে । যতটা পার নিংড়াইয়। ইহীর জল গালিয়া ফেল। তারপরে একটি পাত্রে ঢালিয়া চটকাইয়া লও। ইহাড়ে জীরামরিচবাটা, লঙ্কাবাটা, ধনেবাটী, ক্ষুধ, চিনি ও মুন সব একত্রে মিশাইয়। মাথ । এক ছটাক খি চড়াষ্টয় তাহাতে তেজপাতা ছাড় । খেয় ধোয় উঠিলে তাঁহাতে জীর ও হিং (হিন্দুকু আগে হইতে একটু জলে ভিজাইয়া রাখিবে) ছাড়িরা তারপরে কচুশাক চালিয়া দিবে। প্রায় মিনিটসাত নাড়াচাড়া করিয়া যখন দেখিবে জল মরিয়া গিয়া বেশ থকৃথকে হইয়াছে তখন, লরিকেল কোরা দিয়া ফু একবার অধি-নাড়া করিয়া নামাও। এবারে ময়দা টুকু কাঠখোলায় ঈষৎ লালচে করিয়া ভাজিয়া উপরে ছড়াইয় সবটা র্যাটিয়৷ 腎将」