পাতা:আমিষ ও নিরামিষ আহার প্রথম খণ্ড.djvu/৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।



(২)


ইহার আরও প্রসার আবশ্যক। যেটা আমরা খাই ও আমাদের ভাল লাগে, অল্পব্যয়ে যে সুস্বাদু সামগ্রী প্রস্তুত করি সেটি জগতে সকলে কেন না জানিবে?— গৃহে গৃহে সকলে তাহার দ্বারা কেন আনন্দ ও উপকার না পাইবে? এই শুভ উদ্দেশ্যে আমরা খাদ্য প্রস্তুত প্রণালী লিপিবদ্ধ করিতে আরম্ভ করিলাম।


খাবার সামগ্ৰীটি অনেক টাকা খরচ করিলেই যে ভাল হইবে তাহার কোন অর্থ নাই। কোন জিনিষটা দু আনায় যেমনটা হইবে হয় সেখানে দুটাকা খরচ করিলেও তেমনটা হইবে না; কারণ খাদ্য পাকের কৌশলটুকু জানা না থাকিলে কেবল অর্থব্যয়ে কোন ফলই হয় না। অনেক সময়ে দেখিয়াছি পাচকের সেই কৌশলটুকু গুপ্ত রাখিয়া দেয় অথবা অজ্ঞতাবশতঃ বাজে উপকরণে শ্ৰাদ্ধ করিয়া থাকে। আমি যথা সাধ্য এ পুস্তকে যাহাতে মুহু থাধ্য সামগ্রীগুলি সকলে সহজে স্বল্পব্যয়ে ও অল্প সময়ে প্রন্থ করিতে পারে তজ্জন্য বিশেষ চেষ্টা করিয়াছি। পাঠকের পুস্তকে এমন অনেকগুলি খাদ্য দেখি তে পাইবেন যেগু আমাদিগের নিজের উদ্ভাবিত ; সেগুলিকে নুতন নূতন নামে ভূf BBS BBBBS BBSBBS BB BBBB DBBBS BBSB BBB করিয়াছি ।

অfমাদের বাঙ্গলা দেশে কোন বিষয়ে একটা বিধিবদ্ধ ভ দেখা যায় না । এ দেশে কোন বিষয়ে একটা শৃঙ্খলা ও পা পাট্য নাই । আমাদের অtহারে ও এই বাঙ্গালী চরিত্র বিে রূপে পরিলক্ষিত হয় । আমাদের ভোজে মাছের সঙ্গে ক্ষী:ে সঙ্গে যেন একটা হযবরল ব্যাপার হইয় উঠে । এইরূপ আছ যেমন শাস্ত্র বিরুদ্ধ তেমনি স্বাস্থ্যবিরুদ্ধ । এই বিশৃঙ্খলা হই উদ্ধার করিরা বাঙ্গলা খাবারকে শৃঙ্খলার স্বত্রে আবদ্ধ করা মা