পাতা:আরোগ্য - মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/১৩১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


: নিশ্চয় । এমন শক্ত সবল শরীর, তার ওপর তোমার বুদ্ধি আছে বাস্তব-বোধ আছে । সহজেই সেরে যাবে। এবার অন্য রোগীর পালা । কেশব উঠে দাড়িয়ে বলে, শেষ কথাটা জিজ্ঞেস করে যাই । আর সব যেমন আছে তেমনি থাকবে, আমি ব্যাপারটা বুঝলেই সেরে যাবে ? এটাতেই বড় খটকা লাগছে মনে । ডাক্তার দত্ত হেসে বলে, সব যেমন আছে তেমনি থাকবে কেন ? ব্যাপার তলিয়ে বুঝলেই তুমি আর মিথ্যা অসম্ভব সাধ নিয়ে অস্তির হবে না, তোমার রোগটা সেরে যাবে । হাসি বন্ধ করে বলে, একটা কথা মনে রেখো । আমার কাছেও অসম্ভবকে সম্ভব করার আশা কোর না । আমি ডাক্তার "আমি তোমার রোগটাই সারাতে পারি, তোমার জীবনে সুখ শান্তি আনন্দ এসব এনে দিতে পারি না । তোমার মাথা ঘোরে, গলা শুকিয়ে যায়, বুকটা হঠাৎ ধড়াস করে ওঠে, রাত্রে ঘুম হয় না—এসব আমি সরিয়ে দেব। তার বেশী কিছু আশা কোরো না । তোমার বাস্তব জীবনটা যদি দুঃখের হয়, মনের দুঃখে রাত্রে যদি তোমার ঘুম না হয়তোমায় আমি বড় জোর ওষুধ খাইয়ে ঘুম পাড়িয়ে দিতে পারি। তোমার দুঃখ আমি দূর করতে পারব না। আপনি শুধু আমার রোগটা সারিয়ে দিন। সন্ধ্যার পর কানুকে বিবরণ জানাতে গিয়ে কেশব দ্যাখে, কানু বিছানায় শুয়ে আছে, তার বা পায়ে আর মাথায় ব্যাণ্ডেজ বাধা ।

কি ব্যাপার। এর ?

SR