পাতা:আরোগ্য - মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/১৫১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সে বাতিল মেয়েমানুষ । পুরুষ মেয়েমানুষের জোট পাকানো জীবনে সে শুধু ঝনঝাটবাড়তি বোঝা । অথচ মেয়েমানুষ হিসাবে একমাত্র তারই সঙ্গে কারবার এই দীর্ঘদেহ বলিষ্ঠ পাগলাটে মানুষটার। তাকে নিয়েই তার হিসাব-নিকাশ যে কি করে তার সামাজিক মৰ্য্যাদা বজায় রেখে নিজেঃ হাজার অসুবিধা ঘটিয়েও তার সঙ্গে ভালবাসা চালিয়ে যেতে পারে । কিন্তু লাভ কি হল তার ? রাধার মত এই কৃষ্ণটির কাছে নিজেকে সাপে দিয়েও নিজেকে সে হারালো । কেশবের অসহ্য ঠেকে মায়ার এরকম ভঙ্গি করে মুক হয়ে দাড়িয়ে ঠোট নেড়ে চেড়ে মনের চিন্তার বাক্য সাজানো । সে বলে, ঢং করে না। একটা সাংঘাতিক বিপদের মুখে পড়েছি বুঝতে পারিছ না ?

না বুঝতে পারছি না । তোমার বিপদ কি আমার জন্যে, আমার দোষে ?

কেশব খানিকক্ষণ গুম খেয়ে থাকে। কথা যখন বলে বেশ টের পাওয়া যায় মায়ার উপর গায়ের জবালা তার কমে নি ।

সে নয় বুঝলাম, এসব ব্যাপার মেয়েরা এমনিই টের পায়। তোমার কোন দোষ নেই। বুদ্ধি তোমার খুব চোখা, কিন্তু এ্যান্দিন বলনি কেন. চুপ করে থাকার মানে কি ?
কপাল রে! এও আবার বলতে হয় নাকি ? এতো সবাই জানে! সংসার ছাড়া মানুষ তো নও, কি করে জানিব সোজা কথাটা তোমার খেয়ালে আসে নি ?

S8 ግ