পাতা:আরোগ্য - মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/৫০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কেশব শোনে কি কথার জের টেনে ললনা বলছে, দশজন সুস্থ মানুষের সঙ্গে না মিশলে আমার দম আটকে আসে । ঃঃ আমি কি অসুস্থ মানুষ ? আমার সঙ্গে একটু বেড়ালে দোষ কি ?

এই তো বেড়াচ্ছি। আপনাকে বাড়ীতে নামিয়ে দিয়ে আমি

বাড়ী যাব । বন্ধুর বাড়ী উৎসব চলছে, বাড়ীতে জরুরী কাজ না থাকলে চলে আসি ? ঃ কি কাজ ? ঃ আছে একটা ঘরোয়া ব্যাপার । কেশব টের পায়, নরেশ আহত হয়ে চুপ করে গেল। লালন বলে আপনি তো খুব বড় কেমিষ্ট। বাতাসে অক্সিজেনের পাসেণ্টেজ আরও বেশী হল না কেন বলতে পারেন ? অক্সিজেন আমাদের এত দরকারী ! চট করে আড় চোখে কেশব নরেশের মুখ দেখে নেয় । একটু বিষঃ হাসি ফুটেছে নরেশের মুখে । S DBSDD BOB BDB LBLBDB DD DBDDYS DDBD BB DBBD অন্ততঃ ছেলে-ভুলানোর চেষ্টাও কর । কিন্তু সত্যই কি ছেলে-ভুলানো প্রশ্ন করছিল৷ ললনা ? পরদিন আপিস কলেজ যাবার বেলায় নিমাই এসে জানায়, ললনা কলেজ যাবে না । ডাক্তারকে ফোন করা হয়েছে।

ইস। কিরকম যে করছে শ্বাস টানার জন্য। দেখলে এমন কষ্ট হয়। কেশব বলে, রাতে ডাক্তার এসেছিল শুনলাম ।

ঃ সে তো পেট ব্যথার জন্য। এখন আবার হঁপানি উঠেছে ৷ প্ৰতিমাসে ললনা খুব ব্যথা ভোগ করে এটাই জানা ছিল কেশবের । এসময় তার যে আবার ছাপানিও হয় আজ সেটা প্ৰথম জানতে পারে। 8V