পাতা:আরোগ্য - মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/৫৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


করে এলে কিছু না বুঝেও ব্যাপারটার গুরুত্ব অনুভব করে চুপ ? করে দাড়িয়ে আছে । প্ৰণবের বেী আদরিণীর এই এতখানি ঘোমটা । ঘোমটা তারই জন্য।-সে। ভাসুয় । বিয়ের দু’বছরের মধ্যে দু’টি ছেলে মেয়ে হয়েছে, অন্য সকলের কাছে । কমাবার ৩ধিকার পেয়েছে কিন্তু ভাসুরের কথা আলাদা ঘাটে গিয়ে প্ৰায় উলঙ্গ হয়ে গা ধোয়, স্নান করেচারিদিকে কত চোখ গ্ৰাহও করে না । কিন্তু ভাসুরের কাছে ঘোমটা টেনে জড়সড় হয়ে থাকা চাই । সে এক নয়, আরও অনেক মেয়ে বৌয়ের মতই খোলা ঘাটে নিবিববাদে তিন হাতি গামছায় কাজ চালিয়ে ঘরে দশহাত ঘোমটা টানে বলেই কেশবের গা জ্বালা করে না । আর পাচ জনের সমান BDBB BB LBBBLS B DBDD DDD D DDDDBDB SS মিনু ছাড়া বাড়ীর সকলে প্ৰায় ছেকে ধরেছে তাকে, বাচ্চ কাচার পৰ্য্যন্ত । জামা কাপড় ছেড়ে স্নান করে খোলা উঠানে জল চৌকিটা পেতে বসে একটা বিড়ি ধরিয়ে সে সবে ভাবতে সুরু করেছিল ডাল আর ডালনা দিয়ে রুটি খাবে না। শুধু একটা ডিম সিদ্ধ করে দিতে বলবে । হঠাৎ এই আক্রমণ । বিড়িটা ছুড়ে ফেলে সে গম্ভীর আওয়াজে হুকুম দেয়, ভোলা আমায় একছিলিম তামাক দে । র্তার ভাবান্তর দেখে সকলে ভড়কে গিয়ে চুপ করে থাকে। । মস্ত উঠান। চারিদিকে ঘিরে আছে চুণবালি খসা ঘরগুলি। এই উঠানে চোব্দ সালের যুদ্ধের পর চার বছর প্রতিমা এনে দুর্গা পূজা হয়েছিল, প্ৰতিমা আনা নেওয়ার জন্য দরজা ভেঙ্গে বসানো হয়েছিল। কাঠের বড় গেট । R