পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (চতুর্থ বর্ষ).pdf/১১৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


S 8 O আৰ্য্যাবৰ্ত্ত । ৪র্থ বর্ষ-২য় সংখ্যা । লালকুটীতে যাইবে না ?” তিনি বলিলেন, “যাইব । এই খোকাকে দুধ খাওয়াইয়া-খুকীকে কাপড় পরাইয়া-তোমার ভাশুরের আর বরের জলখাবার গুছাইলেই হয় ।” উকিল-গৃহিণী দিদির অবশিষ্ট কায্যের ফিরিস্তি শুনিয়াই বুঝিলেন, সন্ধ্যার পুৰ্ব্বে কায শেষ হওয়া দুৰ্ঘট । তিনি বলিলেন, “আমি খুকীকে কাপড় পরাইয়া, জলখাবার গুছাইতেছি! তুমি খোকাকে দুধ খাওয়াও।” দিদি ইহাতে অত্যন্ত আনন্দিত হইয়া দুগ্ধ গরম করিবার জন্য উঠিলেন এবং ব্যস্ততাবশতঃ যাইতে দুগ্ধের বাটিটাতেই পদের আঘাত লাগাইয়া অনেকটা দুগ্ধ ফেলিয়া দিলেন। তঁহাদের কায শেষ হইতে না। হইতে পোষ্টমাষ্টার ঘরণী আসিয়া উপস্থিত হইলেন-“কি গো, তোমরা আজ লালকুঠতে যাইবে না ? ছোট বোের দিদি আসিয়াছে।” উকীল-গৃহিণী বলিলেন,-“আমরা যাইবার উদ্যোগই করিয়া আছি । অপেক্ষা কেবল তোমার । তোমার কৰ্ত্তা যে বড় আজ সকাল সকাল ছুটী দিলেন ?” তিনি বলিলেন, “হা, গো হা . বলে, “অনেক মেয়ে সতী আছেন, ধরা পড়েছেন রাধা” । আমি ত তবু আসিয়াই উপস্থিত । তোমাদের যে এখনও দেখি, সবই অস্থিত। চল—একটু শীঘ্ৰ করি । কল্যাণীকে আমি খবর দিয়া আসিয়াছি।” সরোজার আগমন-সংবাদ কল্যাণী পূর্বে পায় নাই ; পোষ্টমাষ্টার বাবুর পত্নী বাহির হইবার সময় দাসীকে দিয়া তাহাকে সে সংবাদ দিয়া আসিয়া ছিলেন। সে সংবাদ পাইয়া—সংসারের কাব্য সারিয়া লালকুঠিতে যাইতে কল্যাণীর কিছু বিলম্ব হইল। কিন্তু সে যথাসম্ভব শীঘ্ৰ তথায় উপস্থিত হইল । কারণ, নীরজার দিদি আসিয়াছেন। তিনি কে ? তিনিই কি সরোজা ? সে এই কথা যত ভাবিতেছিল - সে প্রশ্নের মীমাংসার জন্য তাহার ব্যগ্ৰতা ততই বৰ্দ্ধিত হইতেছিল । - r * কল্যাণী যখন লালকুঠতে উপস্থিত হইল, তখন আগন্তুক ও গৃহস্থাদিগের সঙ্গে নীরজা অন্তঃপুরে দালানে বসিয়া ছিল । তাহার শ্বাশুড়ীও তখন তথায় ছিলেন । কল্যাণী আসিয়া দাড়াইলেই নীরজা সরোজাকে বলিল,-“দিদি । ইহঁরই কথা তখন তোমাকে বলিতেছিলাম।-ইনি যতীশ বাবুর স্ত্রী।” সরোজা কল্যাণীর আগমন প্ৰতীক্ষা করিতেছিল। সে উঠিয়া দাড়াইল ; মুহুর্তের জন্য তাহার মুখে পাণ্ডুবৰ্ণ ব্যাপ্ত হইল-নয়নে বিস্ময় ফুটিয়া উঠিল। কিন্তু সে মুহূৰ্ত্তের জন্য। তাহার পর সে অকম্পিত্যকরে স্বীয় কণ্ঠ হইতে