পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (চতুর্থ বর্ষ).pdf/৩৬১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


མrt། e སོ-eཤRi is nun প্ৰচলিত ছিল ; এবং মনে হয় যে, পশুহত্যার বাহুল্যই যুদ্ধদেবের জীবহিংসার বিরুদ্ধে দণ্ডায়মান হইবার কারণ। বুকদেবের মতাজষাজী ভাৱৰ্দ্ধাৰলম্বী রাজাগণ জীবহিংসা নিষেধ করিতে DLL BBD S DDD DBBBDBDBD DBDDBDDBD DBB DBDDDDDBDYSSS DD DDDDS TDBD শাসনকালে হিন্দুরা বেদের গোহিত্যার মতও মন্দলাইতে বাধ্য হইয়াছিলেন। এখন সেই পরিবর্তিত মতই চলিতেছে । পঞ্চনদ অতীব শীতপ্রধান দেশ । যখন আৰ্যারা ক্ৰমশঃ বঙ্গদে শাভিমুখী হইতে লাগিগেন, তখন ক্রমশঃই তাপ উপলব্ধি করিতে লাগিলেন, এবং আরও দেখিলেন যে, সুজলা, DDBDBBS KLuCLDDBS BB DDDDD DDBBB SLD DDBBD S SDDB BDBDBBD DBBBBBDDBBD হইবে, আশ্চৰ্য্য কি ? T DDEE gLLzS DS M DYS SBKKt DDDDD SDYYS SBDB KEY LLLS DDD চালনা করা যায়, যে দেশে “গাই বলদে চন্সে” যশায় গোদুগ্ধে, গোময়ে, গোন্ধুরে, শৃঙ্গে নিয়তই প্ৰয়োজন, সে দেশে সেই গোহাঁতা মহাপাতক বিবেচিত হইবে না ত কি ? Strial economy frit a Tig east আর একটি কথা । যত প্রকারের মাংস আছে, তন্মধ্যে গোমাংস ভক্ষণে যক্ষ্মারোগের সম্ভাবনা সর্বাপেক্ষা অধিক এবং ছাগমাংস-ভক্ষণে সে রোগের কোনও সম্ভাবনাই নাই। এমত অবস্থায়, গোমাংস বর্জনই শ্ৰেয়ঃ। আশ্চর্যের বিষয় এই যে, দূরদর্শী হিন্দুশাস্ত্রজরা গোমাংসের এই দোষ জ্ঞাত ছিলেন না । অথবা, তৎকালে এই ব্যাধির অস্তিত্বও ছিল না। বলিয়া বোধ হয় হিন্দুশাস্ত্রকাররা তদ্বিষয়ের উল্লেও করেন নাই—পরস্তু যক্ষ্মারোগে উহার ব্যবহারেরই অনুমোদন করিয়াছেন , SDBLDSDBDBDBuBDB DDBD D DDBD BD DDDS DD SBDYtDB BBDu S BDDDS BDBD প্ৰমাণ নাই । শূকরের মাংস ভক্ষণ যেমন শ্ৰীহট দেশে অদ্যাপিও প্রচলিত আছে, তেমনই শুনিতে পাই, হিন্দু-প্রধান জয়পুরেও প্রচািলত আছে। বন্য কুকুট, বন্য বরাহ প্রভৃতি যে খাইবাৰ ব্যবস্থা আছে তাহার অর্থ আর কিছুই নহে : শুধু এই যে, বন্য জাতিরা এখনও সকল মাংস ব্যবহার করে । , বন্য পশুপক্ষীরা অপেক্ষাকৃত সুস্থ ও সবলদেহ এবং ঐ রূপ একটা সীমা নির্দিষ্ট থাকিলে যথেচ্ছ প্ৰাণীহিংসার রোধ হয়। চিকিৎসক