পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (চতুর্থ বর্ষ).pdf/৫৩৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


"I a . . . . . . - . . . . . " " . . . . . . . ".عـ : * h . . . . " 枪 a ... " ነቕ‛y " সৰ ধৰিলেও ভীহারা বুঝেন না। কেবল-শ্বাও) "দীও । হাঁড়ীভরা নন্দেশ পাঠাইলেণ্ড তাহারা তাই খালি বলিয়া অভিযোগ করেন। পূজার সময় সাধ্যমত মূল্যবান বস্ত্ৰ দিলেও বলেন “খেলো”। কিন্তু আমি জীবনে কখনও তিন টাকার উর্ধের মূল্যের বক্স ব্যবহার করি নাই। অবমতমস্তকে দোষ স্বীকার করিয়া লইলেও রক্ষা নাই। আমার অপরাধ কি ?” রামতনু কঁাদিয়া ফেলিলেন। সাধাৰী পত্নী অতিমাত্র ব্যথিত হুদয়ে বলিলেন, “আইস ; যাহা হইবার তাহা হইবে ; বেলা হইয়া গিয়াছে’-ঠাকুর পূজা করিতে হইবে।” । স্নানতঃ পত্নীর হৃদয়ের ব্যথা অনুভব করিয়া খড়ই মৰ্ম্মাহত হয় পড়িলেন। তিনি জামেন, সাধ্বী কোনও দিনই তাহার কোন কথার প্রতিবাদ করেন নাই , তিনি কেবল মনের সঙ্গে যুদ্ধ করিয়াছেন। তিনি বেহাই ও বেহাইন ঠাকুরাণীর ব্যবহার স্মরণ করিয়া নীরকে অশ্রুবিসর্জন করিতেন, আয় ঋষ্ঠার মঙ্গলকামনা করিতেন। স্বামীর প্রতি অব্যক্ত ভালবাসায়, অনাবিল শ্ৰদ্ধায় তাহার মন পরিপূর্ণ ছিল। . মুখুজ্জে মশায় বড় ঘরের বারান্দায় বসিয়া তৈল মর্দন করিতে করিতে খলিলেন,-“ক্ৰটি যে মানুষের হয় না, তাহা নহে; কিন্তু বিশেষ ক্রটিও ত কিছু দেখিতে পাওয়া যায় নিৰ্ম্মণ:ফুটুথের প্রতি যদি কুটুম্বের স্নেহের টান না থাকে, কেবল স্বাের্থই যদি মানবজীবনের লক্ষ্য হয়, তবে সে জীবনে ফল কি ? স্বভাব-সুলভ ভ্ৰান্তি হইতে আপনাকে রক্ষা করাই মানুষের কৰ্ত্তব্য ; কিন্তু আখাপ্ত যখন অধিক হয়, মনে যখন সন্দেহ আইসে, তখনই হৃদয় ব্যথিত হইয়া পড়ে-জ্ঞান মোহাচ্ছন্ন হইয়া যায়।” এই বলিয়া তিনি স্নানার্থ পুষ্করিণীতে SEDD DBD S DDD uBDB DiiiB DB BBB S (8) এ সংসারে স্বার্থপর মাষ্ট্ৰৰ অতি ভয়ঙ্কর। মঙ্গুষ্য বাহ-প্রকৃতির অনন্ত মহিমা-দর্শনে বিশ্নয়াভিভূত হইয়া তাহার ঐশ্বৰ্য্যকে করতলগত করিতে চেষ্টা করে ; কিন্তু তাহা পারে কে ? আপনার মধ্যে ৰে অনন্তের প্রতা য়াহিয়াছে, গুহায় উপলব্ধিজাত মানুষ যদি চেষ্টা করিত, তবে সংসায় কি সুখের স্থানই হইত। সৃষ্টির মুকুটমণি মানুষ-কিন্তু সে যখন স্বার্থের মদিরাপানে উন্মুক্ত হইয়া উঠে, সংসারে কেবল সুখের কামনা করে, তখন সে মানুষ কি ভীষণ স্বায়ুৰ! সে কিছুতেই বুধিতে পারে গা যে, তৃণাসনে ও সিংহাসনে বড়