পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (দ্বিতীয় বর্ষ - প্রথম খণ্ড).pdf/৪৬৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


" . . " ..ጳ...? - * ・ リ *・á・”“二、下。:・・・ 。 ". . . . . . .. నీ ఆ . . . . - . . . 然 i ... . . . . . . . . ܐܳ܆ · Nor:; * : *: . . SDue esAeiL iei AaS0SSSiSSAAD LSzSrSSSSAAA S StS SDSDSSDSySASuS L - - r . . . . . . . . . . k . . . . . د: . . . . . . . . . . = তোমার চোখ দুটাে যে ফুলে উঠেছে। মুখ রাঙ্গা হয়ে গেছে। তুমি কি SDBB SBDB DDDD DDD S uDuD DD BB D BB BtBt ধরিয়া ক্ৰন্দন করিয়া উঠিল। পিতাকে এমন ব্যাকুলভাবে ক্ৰমন করিতে দেখিয়া সরযুও কঁদিতে লাগিল, তাহার পর আত্মীয়গণ যখন বাসি বিবাহের জন্য সরযুকে খুজিতে আসিল, তখন পিতাপুত্রীকে ঐ রূপ অবস্থায় দেখিতে পাইয়া অনেক করিয়া বুঝাইয়া। তবে দুইজনকে গৃহের বাহিয়ে আনিতে পারিল। বর কনে বিদায়ের সময় একজন কুটুম্বিনী রূদ্ৰেশ্বরকে বলিলেন, “বরের হাতে সরযুর হাত দিয়া বল, “এত দিন আমার ছিল এখন তোমার হলো” ”সজলনয়ন রূত্নেশ্বর বলিল, “ওটা আমি পারবো না ।” অনেকেই আমনই বলিয়া DBDDD SDDD DtD DB S D BB BBBS uBDD DDD D BDBB LL সে ধীরে ধীরে সরযুৱ হাতখানি হাতে লইয়া জামাতায় হন্তের উপর রাখিল, তারপর কম্পিত কণ্ঠে বলিল, “এত দিন আমার ছিল, এখন তোমার-” “হলে,” কথাটি কিছুতে রুদ্ৰেশ্বর বলিতে পারিল না। সেই এক ঘর কুটুম্বিনীর সাক্ষাতে সে বালকের ন্যায় ফুকারিয়া কঁাদিয়া উঠিল। এ ক্ৰন্দনে সে গৃহের সকলেই যোগ দিল। এমন কি বরের চক্ষুতেও দুই বিন্দু অশ্রু ফুটিয়া উঠিল। সরযু দুটি হাত দিয়া পিতার কণ্ঠলিঙ্গন করিয়া ফোপাইয়া ফোপাইয়া কঁদিতে লাগিল। তাহার পর অনেক কষ্টে তাহাকে সেই স্নেহ আলিঙ্গন হইতে মুক্ত করিয়া মহিলাবর্গ মহাপায়ায় তুলিয়া দিয়া আসিলেন। রুদ্রেশ্বর শূন্য কক্ষে যাইয়া অৰ্গল বদ্ধ করিয়া শয়ন করিল। কারণ, এ সময় যদি কেহ সাধনা করিতে আইসে, সে সাত্মনা বিশেষ বিরক্তিকর এবং তাঁহাতে শূন্য হৃদয়ের দুঃখ উপশমিত না হইয়া শুধু বৃদ্ধি পাইবে। সেই সাত্মনার আয়ে স্বৰুদ্ৰেশ্বর দ্বার রূদ্ধ করিয়া দিল । “এখানে ঢের উকিল; পিশার ভাল হ’বে না। সেই জন্য আমার ইচ্ছা, মফঃস্বলে ওকালতি করবো। আর শুধু এর জন্যও নয়, এখানে হেম থাকুতে পারে না। সে ছেলে মানুষ, আমার কাছেই থাকৃতে চায়, জ্যেঠাদের কাছে S iBB DBDBDB BDD DDSDDD DBD KBD BDDS BDD D BDB Y S iiLDB BB DD D DB BDB BDBDB D GGDB BDT DDD BDB uv . . a . . .