পাতা:আর্য্য-নারী দ্বিতীয় ভাগ.djvu/১২৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

কর্ম্মদেৰী । Y সাধু সকল কথাই শুনিলেন। মারবারের সঙ্গে যে, এই উপলক্ষ্যে বিষম বিবাদ উপস্থিত হইবে, তাহাও বুঝিলেন। কিন্তু সেই ভয়ে এমন বীরাঙ্গনার প্রেম প্রত্যাখ্যান করিবার পাত্র তিনি নহেন। সাধু সম্মত হইলেন। যথাসময়ে পিতার অনুমতি লাইয়া সাধু কর্ম্মদেবীকে বিবাহ করিলেন। মারবাররাজ চণ্ড ও তাহার পুত্র অরণ্যকমল এই ঘটনায় যার-পর-নাই অবমানিত বোধ করিলেন। র্তাহারাও উপযুক্ত প্রতিশোধের আয়োজন করিতে লাগিলেন । ৪৮ (R) নিববাহের পর সাধু নববধূসহ পুগলে যাত্রা করিয়াছেন। পথে অরণ্যকমল তাহাদিগকে আক্রমণ কুরিতে পারেন, সকলের মনে এই আশঙ্কা হইল। মোহিলরাজ মাণিকরাও চারি পাঁচ হাজার মোহিলসৈন্য জামাতার সঙ্গে দিতে চাহিলেন। কিন্তু আত্মশক্তির উপর নির্ভর করিয়াই স্ত্রী লইয়া পিতৃগৃহে যাইবেন, এই বলিয়া সাধু, শ্বশুরের প্রস্তাব উপেক্ষা করিলেন। তথাপি মাণিকরাও, সাধুকে অনেক অনুনয় করিয়া, নিজ পুত্র মেঘরাজ এবং তৎসঙ্গে সাত শত মােহিল সৈন্য তঁহার সঙ্গে দিলেন । । পথে, চন্দন নামক কোন স্থানে সাধু বিশ্রাম করিতে বসিলেন। এমন সময়ে অরণ্যকমল ৪৷৫ হাজার রাঠোর সৈন্থসহ সাধুর সম্মুখীন হইলেন।