পাতা:আর্য্য-নারী দ্বিতীয় ভাগ.djvu/২১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

> R ख्ाी-ब्ाह्रौं । এই সময় দিল্লী, আজমীর, কনৌজ, মিবার প্রভৃতি রাজপুত রাজ্যগুলি বিশেষ পরাক্রান্ত ছিল। দিল্লীর রাজা অনঙ্গপালের মাত্র দুইটি কন্যা ছিল। এক কন্যা চোহানবংশীয় আজমীররাজ সোমেশ্বর এবং অন্য কন্যা রাঠোরবংশীয় কনোজরাজ বিজয়লাল, বিবাহ করেন। সোমেশ্বরের পৃথুিরাজ এবং বিজয়লালের জয়চাঁদ নামে পুত্র হয়। পুত্রহীন দিল্লীরাজ অনঙ্গপাল, মৃত্যুকালে পৃথুিরাজকে দিল্লীর সিংহাসন দান করেন। ইহাতে পৃথুিরাজের প্রতি জয়চাঁদের বিশেষ ঈর্ষ্যা ও বিদ্বেষ জন্মিল। সংযুক্ত এই কনোজরাজ জয়চাদের কন্যা । দিল্লী ও আজমীররাজ পৃথুিরাজ বীরত্বে ও মহৎচরিত্রে ভারতের গৌরবস্বরূপ ছিলেন। বীরাঙ্গনা চিরদিনই বীরত্বের পক্ষপাতিনী। পৃথুিরাজের প্রতি পিতার দারুণ বিদ্বেষ ও শত্রুতার কথা জানিয়াও, সংযুক্তা, পৃথুিরাজের প্রতি অনুরাগিনী হইলেন। প্রাচীনকালে ভারতবর্ষ, ভিন্ন ভিন্ন রাজ্যে বিভক্ত ছিল। কোনও রাজা বিশেষ পরাক্রমশালী হইলে অন্যান্য রাজারা তঁহাকে প্রধান বলিয়া স্বীকার করিতেন এবং এই প্রধান রাজা ‘সম্রাট’ বা ‘সার্বভৌম’ উপাধি গ্রহণ করিতেন। একে পৃথুিরাজ বীরত্বের জন্য সর্বত্র প্রসিদ্ধি লাভ করিয়াছেন, তারপর আবার মাতামহের দিল্লীরাজ্য পাওয়ায় তঁাহার ক্ষমতাও বিশেষ বৃদ্ধি হইয়াছে। কুটিলমতি জয়ৰ্চাদের ইহা সহ্য হইল না। তিনি আপনাকে ‘সার্বভৌম’ বলিয়া পরিচয় দিতে লাগিলেন।