পাতা:আর্য্য-নারী দ্বিতীয় ভাগ.djvu/২৯৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

Ry8 আর্য্য-নারী । দয়ারামও সুযোগ বুঝিয়া দেবীপ্রসাদের বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ করিয়া আবার রামকান্তকে তঁাহার জমিদারী ফিরাইয়া দিতে নবাবকে অনুরোধ করিলেন। দেবীপ্রসাদের উপর বিরক্ত নবাব দয়ারামের অনুরোধে আবার সমস্ত জমিদারী লাইয়া রামকান্তকে দিলেন । রামকান্তের জমিদারী ফিরিয়া পাওয়া সম্বন্ধে এইরূপ গল্প আছে। নবাব আলিবর্দী খাঁ নিতান্ত বিচক্ষণ ও বিবেচক রাজা ছিলেন। তরল প্রকৃতি বালকের ন্যায়। এরূপ গুরুতর বিষয়ে এরূপ মতি পরিবর্তন উর্তাহার পক্ষে সম্ভব বলিয়া মনে হয় না । গল্প অমূলক হইতে পারে। তবে, যে ভাবেই হউক, দয়ারামের বুদ্ধি-কৌশলেই যে রামকান্ত তাহার জমিদারী ফিরিয়া পান, C | ( ७ ) ২০০৪ বৎসর বয়সে রাজা রামকান্তের মুতু্য হইল। রাণী ভবানীর দুইটি পুত্র হইয়া শৈশবেই নষ্ট হয়। সৰ্বকনিষ্ঠ সন্তান তারা নামে এক কন্যা মাত্র তখন জীবিত। সুতরাং স্বামীর মৃত্যুতে এই বিস্তীর্ণ জমিদারীর ভার তাহারি হাতে পড়িল । ৩২ বৎসরের সময় বিধবা হইয়া প্রায় ৮০ বৎসর রাণী ভবানী জীবিত ছিলেন। এই দীর্ঘকাল গৃহে, জীবনে, সমান কঠোরভাবে বৈধব্যের ব্রহ্মচর্য্য ব্রত পালন করিয়া একদিকে যেমন তিনি রাণীর ন্যায় দক্ষতা ও তেজস্বিতার সহিত নিজের বৈষয়িক ও রাজনৈতিক কর্ত্তব্য পালন করিয়াছেন, অপরদিকে তেমনি