পাতা:আর্য্য-নারী দ্বিতীয় ভাগ.djvu/৩৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

ॐनैि । R(t শোণিতপাত দেখিতে পারি না । একবার আমার রূপমাত্র দেখিলেই যদি আলাউদ্দিন নিরস্ত হয়, চিতোরের বীরকুল রক্ষা পায়, তাহাতে এমনি কি ক্ষতি ? আমি কে, যে, আমার এই টুকু মাত্র অসম্মানের ভয়ে চিতোর বীর শুন্য হইবে ? আমি একেবারে আলাউদ্দিনের সম্মুখে বাহির হইতে পারিব না। মুকুরে আমার ছবি দেখিয়া যদি তার আকাঙ্ক্ষা মিটে, তবে তাহাতে প্রস্তুত আছি । তাহাকে সংবাদ দাও, যদি এ প্রস্তাবে সে সম্মত হয়, তবে রাজপুরীতে তাহাকে একদিন আনাইবার ব্যবস্থা কর।” অনেক চিন্তা করিয়া পদ্মিনীর কথায় ভীমসিংহ সম্মত হইলেন । আলাউদিনের নিকট সংবাদ গেল। আলাউদ্দিন ইহাতেই স্বীকৃত হইলেন। নির্দিষ্ট দিনে আলাউদ্দিন চিতোররাজ-পুরীতে নিমন্ত্রিত হইয়া আসিলেন। মহাপ্রাণ বীর রাজপুত, একবার কথা দিয়া প্রাণান্তেও তাহার ব্যতিক্রম করে না ; শত্রুকে বন্ধু, অতিথিরূপে নিজ গৃহে গ্রহণ করিবে, একবার এই অঙ্গীকার করিলে, তাহা কখনো ভঙ্গ করে না । আলাউদ্দিন ইহা জানিতেন । তাই ভীমসিংহের নিমন্ত্রণে নির্ভয়ে কতিপয় মাত্র অনুচর লইয়াই তিনি শত্রুগৃহে প্রবেশ করিলেন। মুকুরে আলাউদ্দিন পদ্মিনীর প্রতিমূর্ত্তি দেখিলেন। কল্পনায় তিনি পদ্মিনীর যত চিত্রই অঙ্কিত করিয়াছেন, দেখিলেন, সাক্ষাৎ এই রূপরাশির কাছে সে সব কিছুই নয়। সব যেন এই রূপের প্রভায় ক্ষীণ হইয়া মিলাইয়া গেল। দেখিয়া তঁরা পাপ