পাতা:আর্য্য-নারী দ্বিতীয় ভাগ.djvu/৯১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

y R डांगा-नाड़ी । সেই ছুরিকা বাহির করিয়া বাদসাহের বক্ষ লক্ষ্য করিয়া দৃঢ়হস্তে ধরিলেন। আলুলায়িতকুন্তলা জয়াবতী ভীষণ মূর্ত্তিতে বজের মত স্বরে কহিলেন,-“কে তুমি পাপিষ্ঠ ! তুমিই কি দিল্লীর বাদসহ ? তুমি দিল্লীর বাদসাহই হও আর জগতের অধিপতিই হও, সতী রাজপুত-ললনার ধর্ম্মনাশে যখন উদ্যত হইয়াছ, এই তোমার উপযুক্ত শাস্তি ”— ছুরী উঠিল,—বিস্মিত ভীত ও স্তম্ভিত হইয়া আকবর তড়িদ্বেগে পিছাইয়া গেলেন। জয়াবতী আবার কহিলেন, —“তুমি বাদসাহ ! তুমি নীচ কুকুরের মত পশু প্রকৃতি!—পিশাচ !-পশুরাও মাতার সম্মান রাখে। যদি পশুরও অধম না হও, মাতার নামে এখনি শপথ করা, আর কখনো কোন কুলললনার ধর্ম্মনাশে প্রবৃত্ত হইবে না। — নহিলে এই ছুরীতে, এখনি তোমার বাদসাহীলীলা শেষ হইবে।” আকবর মহৎচরিত্রপুরুষ ছিলেন। কখনো কখনো এইরূপ নীচ ভোগলালসার বশবর্ত্তী হইলেও মহৎ কখনো মহত্ত্বের অমর্য্যাদা করিতে পারে না । সতীর এই তীব্র তিরস্কারে রুষ্ট না হইয়া বিশেষ লজ্জিত, ক্ষুব্ধ, ও • অনুতপ্ত হইলেন। মনে মনে এই মহাপ্রাণা সতীর অশেষ প্রশংসা করিয়া, অবনতমস্তকে তিনি ক্ষমা প্রার্থনা করিয়া শপথ করিলেন, আর কখনো কোন কুলাঙ্গনার প্রতি এরূপ হীন ব্যবহার করিবেন না। তেজস্বিনী রাজপুত সতী আপন মহত্ত্ব-গরিমার উজ্জ্বলতর বেশে স্বামি-সকাশে গমন করিলেন।