পাতা:আলোচনা - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১২৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বৈষ্ণব কবির গান। মর্ত্যের সীমানা। এক স্থানে মর্ত্যের প্রান্তদেশ আছে, সেখানে দাড়াইলে মর্ভোর পরপর কিছু কিছু যেন দেখা যায়। সে স্থানট এমন সঙ্কট স্থানে অবস্থিত, যে উহাকে মর্ত্যের প্রান্ত বলিব, কি স্বগের প্রান্ত বলিব, ঠিক করিয়| উঠ যায়ন—অর্থাং উহাকে हे দুইই বলা যায়। সেই প্রান্তভূমি কোথায় ! পৃথিবীর আপিসের কাজে শ্রান্ত হইলে, আমরা কোথায় সেই স্বগের বায়ু সেবন করিতে যাই । স্বর্গের সামগ্ৰী । স্বৰ্গ কি, আগে তাহাই দেখিতে হয়। যেখানে যে কেহ স্বর্গ কল্পনা করিয়াছে, সকলেই নিজ নিজ ক্ষম তা অনুসারে স্বর্গকে সৌন্দর্ঘ্যের সার বলিয়া à