পাতা:ইঞ্জিল মুকদ্দস্‌.djvu/১০৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


৯৮ ] ছাতি পিটিবেক ॥ উচ আওয়াজেতে তুরী যাহারা বাজায় । ভেজিবেন তিনি হেন নিজ ফেরেস্তায় ॥ আত্মানের নিচে সেই ফেরেস্তা আসিয়া। দুনিয়ার চারি দিকে ঘুমিয়া ২। তার পসন্দিদ লোক যতেক থাকিবে । আনিয়া সবারে জন্ম তাহারা করিবে ॥ ডুমুর গাছের এই এক তমছীল। শিখহ ইহার মানে দিয়৷ জান দিল। ডুমুর গাছের ডাল নরম হইলে । তাহাতে তাহার পাতা ফের দেখা দিলে৷ গরমির ওখত যে নজদিক হইতেছে। তোমাদের ইহা খুব মালুম তো আছে। মাজেজ ঘটিবে যবে ঐ রকমের । জানিবে যে ওক্ত তেরা দর্জায় হাজের ॥ সত্য কর্যে কহিতেছি শুন দিয়া মন । এ জমানার যত আছে লোক জন । তাহীদের গুজরিয়া নাহি যেতে যেতে । এ সব মাজেজ] তোরা দেখিবে ঘটতে ॥ জমিন আম্মান এর টলিয়া যাইবে । হুরগিজ মেরা বাৎ নাহিক টলিবে ॥ সেই বখত কবে হইবে, ইহা ওয়াকেফ না রহাতে সব লোকের তৈয়ারি হইয়া থাকা যে ল জেম, এই বাবতে ইসার নসিহতের বয়ান । সেই রোজ আর সেই ঘড়ির খবর । মোর যে আত্মানি বাপ সে বাপ বেগর। দুনিয়াতে আদমি কিম্বা ফেরেস্তা আত্মানে । ইহার কেহই তার কিছুই না জানে। নোহের ওখতে হৈয়েছিল যে ছুরতে। সে রকম হুইবেক আমার ওখতে৷ পানির তুফান আগে যে রোজ লাগাৎ । জাহাজেতে নোহ নাহি উঠিল নেহাৎ ৷ পানি আসি সবে নাহি ভাসাইয়া দিল । সেই তক লোকে যে রকম করেছিল। খানাতে পিনাতে