পাতা:ইঞ্জিল মুকদ্দস্‌.djvu/১১৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১০২ ৷ খাবিন্দের তোড়াটা লইয়া । সেই গাড়া বিচে রেখে দিল ছিপাইয়া। এহ! বাদে ঢের রোজ গুজারিয়া গেল । তাদের থাবিন্দ এসে দাখেল হইল। ডাকাইয়া বান্দীগণে আপন হুজুরে । হিসাব লইতে সে যে দিল শুৰ কর্যে। তবে যেই শকৃশ পাঁচ তোড়া পেয়েছিল। আর পাঁচ তোড়া এনে সে জন কহিল। পাচ তোড়া টাকা তুমি দিলে মোর হাতে । আর পাচ তোড়া ফাএদা করেছি তাহাতে। তাহাতে কহিল তারে থাবিন্দ তাহার । তুমি মুবারক বান্দী হও ইমান্দার ॥ থোড়াতে ইমান্দার হৈয়েছ এবারে ৷ বহুতের মুক্তিয়ার করিব তোমারে ৷ খশি করিয়াছ তুমি খাবিন্দে আপন । তাহার খুষেতে খুষি হইবে এখন। বাদে যেই শকৃশ দুই তোড়া পেয়েছিল । সেও ভি আসিয়া তারে কহিতে লাগিল ॥ দুই তোড়া ধন তুমি দিলে মোর হাতে। আর দুই তোড়া লাভ করেছি তাহাতে ॥ তাহাতে কহিল তারে খাবিন্দ তাহার । আয় মুবারক বান্দা তুমি ইমান্দার। থোড়াতে ইমানদার হৈয়েছ এবারে । বহুতের মুক্তিয়ার করিব তোমারে। খুষি করিয়াছ তুমি খাবিন্দে আপন । তাহার খুষেতে খুষি হুইবে এখন। তা বাদে যে শকশ এক তোড়া পেয়েছিল। সেও ভি আসিয়া তার খাবিন্দে কহিল। তোমারে সকও লোক জানিতাম আমি । যে জাগাতে নাহি বুনিয়াছ কভি তুমি। কাটিয়া যে থাক তুমি সেই জাএগায়। আর তুমি কভি নাহি ছড়াও যেথায় ৷ তুমি সেই জাএগাতে থাক কুড়াইয়া। ইহার সববে মুই দহশং থাইয়া। জমিনের বিচে এক গাড়া যে খলিয়া । রাখি তোমার সেই তোড়া ছিপাইয়া ॥ তোমার যা হয় দেখ তা লও এখন । শুনিয়া খাবিন্দ