পাতা:ইতিকথার পরের কথা.pdf/২৬৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

শুভ গম্ভীর আওয়াজে কড়া শাসনের ভজিতে বলে, তোমার কি এ ছেলেমানুযি মানায় মায়া ? এসব ভাবা কি তোমার শোভা পায় ? DD DD EBBL S LBD S DDBDDD S BB DB BB D D sB জীবনের। দু-বার হানা দিয়ে দু-বারই সে শুভকে মশগুল হয়ে থাকতে দেখেছে এই গেয়ে মেয়েটাকে নিয়ে। শুধু তাই নয়। কয়েকটা সিনেমায় সে তো দেখেছে কি ভাবে আজকের গেয়ে চাষীর মেয়ে শহরের বড়লোকের ছেলেদের বশ করে ! এ নিয়ে শুভরা সঙ্গে তর্কের নামে ঝগড়াও কি কম হয়েছে । আর শুভকে সে স্পষ্ট বলেছে যে তার বিদ্যাবুদ্ধি জ্ঞান আর সংস্কৃতি নিয়ে, আদর্শ নিয়ে, বড়াই করাটাই ভণ্ডামি। আসল কথায় তাদের আঙ্কেল গুড়ুম হয়ে গেছে। স্বাধীন সমান আধুনিক বৌ সে চায় না, সে চায় ভীরু নিরীহ সরল সুমিষ্ট চিরন্তন ভারতীয় কাব্যের প্রতীকের মত একটা বেী—যে একাধারে প্রিয়া এবং দাসী । শুভর জবাবগুলি হত খাটি। বৌ আর প্রিয়া নিয়ে মাথা ঘামাবার সময় আর নেই। এদেশের শিক্ষিত ভদ্রলোকের । মায়ার কান্না পায়। সে বুঝতে পারে যে হঠাৎ সে যদি সমস্ত হিসাবনিকাশ চিন্তাভাবনা বিসর্জন দিয়ে শুধু নিরুপায় আসহায়ের মত-ভিখারিণীর মত-এখন মুছিতা হয়ে পড়ে শুভর। পায়ের কাছে—সমস্ত হিসাব সাময়িকভাবে বদলে যাবে। জগৎসংসার ভুলে গিয়ে এই শুভ তাকে সুস্থ সচেতন করে তোলার জন্য পাগল श्रुग्न ऐछछैóद । কিন্তু তাকে সুস্থ আর সচেতন করেই আবার শুভ ফিরে আসবে এই সরলা অবলা গেয়ে মেয়েটার টানে । প্রেমের টানে নয়। সেটুকু বুঝবার মত বুদ্ধি মায়ার আছে। সব দিক থেকে বঞ্চিত ধৰ্ষিত দুঃখিনী মেয়েটাকে শুধু জানিয়ে দিতে যে সেও তার সঙ্গে আছে। বিদ্রোহ করতে চেয়ে বিপদে পড়েছে। তাই তার সঙ্গে আছে। শুভ আর লক্ষ্মী মুখ চাওয়াচাওয়ি করে। মোটর চেপে গায়ে এসে তেঁতুল, RNoN