পাতা:ইন্দিরা-বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/৮৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


*、*、*、 "" ". . - একবিংশতিতম পরিবে সেকালে যেমন ছিল । ৮১ কামিনী দূর হইতেই বলিল, “অনেক দিন সময় হয়েছে।” ാട് তার পর একটা সোর গোল শুনিলাম। আমার স্বামীর আওয়াজ শুনিতে পাইলাম —তিনি একজনকে হিন্দিতে ধমক ধামক করিতেছেন। আমরা দেখিতে গেলাম । দেখিলাম, এক জন দাড়িওয়াল মোগল ঘরের ভিতর প্রবেশ করিয়াছে ; উ-বাৰু তাহাকে তাড়াইবার জন্য ধমক ধামক করিতেছেন, মোগল যাইতেছে না। কামিনী তখন দ্বার হইতে ডাকিয় বলিল, “মিত্র মহাশয় । গায়ে কি জোর নেই ?” মিত্র মহাশয় বলিলেন, “আছে বৈকি ?” কামিনী বলিল, “তবে মোগল মিন্‌সেকে গলা ধাক্কা দিয়া ঠেলিয়া দাও না।” এই বলিবা মাত্র মোগল উৰ্দ্ধশ্বাসে পলায়ন করিল। পলায়ন করিবার সময় আমি তাহার দাড়ি ধরিলাম—পরচুলা খসিয়া আসিল । মোগল বলিল, “মরণ আর কি। তা এ বোকাটি নিয়া ঘর করিবি কি প্রকারে ?” এই বলিয়া সে পলাইল । আমি দাড়িটা ছুড়িয়া ফেলিয়া যমুনা দিদিকে উপহার দিলাম। উ-বাৰু জিজ্ঞাসা করিলেন, “ব্যাপার কি ?” কামিনী বলিল, “ব্যাপার আর কি ? তুমিই দাড়িটা পরিয়া চারি পায়ে ঘাসবনে চরিতে আরম্ভ কর।” উ-বাবু বলিলেন, “কেন, মোগল কি জাল ?” কামিনী । কার সাধ্য এমন কথা বলে । শ্রীমতী অনঙ্গমোহিনী দাসী কি জাল মোগল হইতে পারে। আসল দিল্লীর অমিদানি । একটা ভারি হাসি পড়িয়া গেল। আমি একটু মনঃক্ষুন্ন হইয়া চলিয়া আসিতেছিলাম, এমন সময়ে পাড়ার ব্রজসুন্দরী দাসী একখানি জীর্ণ বস্ত্র পরিয়া একটি ছেলে কোলে করিয়া উ-বাবুর কাছে গিয়া দুঃখের কান্ন। কাদিতে লাগিল। “আমি বড় গরীব ; খেতে পাই না ; ছেলেটি মানুষ করিতে পারি না।” উ-বাবু তাহাকে কিছু দিলেন। আমরা দুই জনে দ্বারের দুই পাশে । সে যখন দ্বার পার হয়, কামিনী তাহাকে বলিল, “ভাই ভিখারিণী । জান ত বড় মানুষের কাছে কিছু ভিক্ষা পাইলে দ্বারবানদের কিছু ঘুস দিয়ে যেতে হয় ?” ব্রজসুন্দরী বলিল, “দ্বারবান কে ?” कॉभिनौ । श्रांभद्रा झझे छन । ব্রজ । কত ভাগ চাও ? কামিনী। পেয়েছ কি ? 33