পাতা:ইন্দিরা-বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/৯২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


独唱” हेलिझी এক জন যুৰা দয়া কহিল, “আমি ইহাকে লইয়া ফাটকে যাই, সেও ভাল, তবু ইহাকে ছাড়িতে পারি না ।” সে আর বাহা বলিল, তাহা লিখিতে পারি ন—এখন মনেও আনিতে পারি না । সেই প্রাচীন দক্ষ ঐ দলের সর্দার। সে যুবাকে লাঠি দেখাইয়া কহিল, ”এই লাঠির বাড়ি এই খানে তোর BB BDD BBB DDDS g BBB BB BB BBBB BB BS BBB BBB BBS DBBB তাহাদিগের কথা বাৰ্ত্ত শুনা গেল—ততক্ষণ আমার জ্ঞান ছিল । তার পর সেইখানে আমি অজ্ঞান হইয়া পড়িলাম। * দ্বিতীয় পরিচ্ছেদ । ধখন আমার চৈতন্য হইল, তখন কাক কোকিল ডাকিতেছে। বংশপত্রাবচ্ছেদে বালারুশকিরণ ভূমে পতিত হইয়াছে। আমি গাত্ৰোখান করিয়া গ্রামানুসন্ধানে গেলাম। কিছু দূর গিয়া এক খানি গ্রাম পাইলাম। আমার পিত্রালয় যে গ্রামে, সেই গ্রামের সন্ধান করিলাম ; আমার শ্বশুরালয় যে গ্রামে, তাহারও সন্ধান করিলাম । কোন সন্ধান পাইলাম না । দেখিলাম, আমি ইহার অপেক্ষ বনে ছিলাম ভাল। একে লজ্জার মুখ ফুটিয়া পুরুষের সঙ্গে কথা কহিতে পারি না, যদি কই, তবে সকলেই আমাকে যুবতী দেখিয়া আমার প্রতি সতৃষ্ণ কটাক্ষ করিতে থাকে । কেহ ব্যঙ্গ করে—কেহ অপমান সূচক কথা বলে। আমি মনে প্রতিজ্ঞা করিলাম, "এই খানে মরি, সেও ভাল ; তবু আর পুরুষের নিকট কোন কথা জিজ্ঞাসা করিব না।” স্ত্রীলোকেরা কেহ কিছু বলিতে পারিল না—তাহারাও আমাকে জন্তু মনে করিতে লাগিল বোধ হয়, কেননা তাহারাও বিস্মিতের মত চাহিয়া রহিল। কেবল এক জন প্রাচীন বলিল, “ম, তুমি কে ? অমন মুন্ধর মেয়ে কি পথে ঘাটে একা বেরুতে আছে ? আহা মরি, মরি, কি রূপ গা ? তুমি আমার ঘরে আইস ।” তাহার ঘরে গেলাম। সে আমাকে ক্ষুধাতুরা দেখিয়া খাইম্ভে দিল। সে মহেশপুর চিনিত। তাহাকে আমি বলিলাম যে, তোমাকে টাকা দেওয়াইব-তুমি আমাকে রাগিয়া আইস। তাহাতে সে কহিল যে, আমার ঘর সংসার ফৈলিয়৷ যাইব কি প্রকারে ? তখন সে ষে BB BBD DBBS BB BB BB BBBS BB BBB BB BBBDSDDD DDD DD BB হইল। এক জন পথিককে জিজ্ঞাসা করিলাম, “ই গী, মহেশপুর এখান হইতে কত দূর ” সে আমাকে দেখিয়া স্তম্ভিতের মত রহিল। অনেক ক্ষণ চিন্তা করিয়া কহিল, “তুমি কোথা হইতে আসিয়াছ ?” ষে গ্রামে প্রাচীন আমাকে পথ বলিয়া দিয়াছিল, আমি সে গ্রামের নাম করিলাম। তাহাতে পথিক কহিল যে, “তুমি পথ ভুলিয়াছ। বরাবর উন্ট আসিমাছ। মহেশপুর এখান হইতে দুই দিনের পথ ।” আমার মাথা ঘুরিয়া গেল। আমি তাহাকে জিজ্ঞাসা করিলাম, “তুমি কোথায় যাইবে " সে বলিল, “আমি এই নিকটে গৌরীগ্রামে যাইব ।” আমি অগত্যা তাহার পশ্চাং২ চলিলাম । গ্রামমধ্যে প্রবেশ করিয়া সে আমাকে জিজ্ঞাসা করিল, “তুমি এখানে কাহার বাড়ী যাইবে ?” আমি কহিলাম, “আমি এখানে কাহাকেও চিনি না। একটা গাছ তলায় শয়ন করিয়া থাকিব ।”