পাতা:ইন্দিরা-বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/৯৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পাঠভেদ ఫి: পথিক কহিল, “তুমি কি জাতি ?” আমি কছিলাম, “আমি কায়স্থ ।" । সে কহিল, "আমি ব্রাহ্মণ। তুমি আমার সঙ্গে আইল। তোমার ময়লা মোটা কাপড় বটে, কিন্তু তুমি বড় ঘরের মেয়ে। ছোট ঘরে এমন রূপ হয় না।” ছাই রূপ। ঐ রূপ, রূপ, শুনিয়া আমি জালাতন হইয়া উঠিয়াছিলাম। কিন্তু এ ব্রাহ্মণ প্রাচীন, আমি তাহার সঙ্গে গেলাম । আমি সে রাত্রে ব্রাহ্মণের গৃহে, দুই দিনের পর একটু বিশ্ৰাম লাভ করিলাম। পর দিন প্রাতে উঠিয়া দেখিলাম যে, আমার অত্যন্ত গাত্র বেদনা হইয়াছে। পা ফুলিয়া উঠিয়াছে ; বসিবার শক্তি নাই। যত দিন না গাত্রের বেদন আরাম হুইল, ততদিন আমাকে কাজে কাজেই ব্রাহ্মণের গৃহে থাকিতে হইল। ব্রাহ্মণ ও র্তাহার গৃহিণী আমাকে যত্ন করিয়া রাখিল। কিন্তু মহেশপুর যাইবার কোন উপায় দেখিলাম না। কোন স্ত্রীলোকেই পথ চিনিত না, অথবা যাইতে স্বীকার করিল না। পুরুষে অনেকেই স্বীকৃত হইল—কিন্তু তাহাদিগের সঙ্গে একাকিনী যাইতে ভয় করিতে লাগিল। ব্রাহ্মণও নিষেধ করিলেন। বলিলেন, “উহাদিগের চরিত্র ভাল নহে, উহাদিগের সঙ্গে যাইও না । উহাদের কি মতলব বলা যায় না। আমি ভদ্র সন্তান হইয়া তোমার স্থায় সুন্দরীকে পুরুষের সঙ্গে কোথাও পাঠাইতে পারি না।” স্থতরাং আমি নিরস্ত হইলাম । একদিন শুনিলাম যে ঐ গ্রামের কৃষ্ণদাস বহু নামক একজন ভদ্রলোক সপরিবারে কলিকাতায় যাইবেন । শুনিয়া আমি ইহা উত্তম মুযোগ বিবেচনা করিলাম। কলিকাতা হইতে আমার পিত্ৰালয় এবং শ্বশুরালয় অনেক দূর বটে, কিন্তু সেখানে আমার জ্ঞাতি খুল্লতাত বিষয় কৰ্ম্মোপলক্ষে বাস করিতেন । আমি ভাবিলাম যে কলিকাতায় গেলে অবহু আমার খুল্লতাতের সন্ধান পাইব । তিনি অবত আমাকে পিত্রালয়ে পাঠাইয়া দিবেন। না হয়, আমার পিতাকে সম্বাদ দিবেন। আমি এই কথা ব্ৰাহ্মণকে জানাইলাম। ব্রাহ্মণ বলিলেন, “এ উত্তম বিবেচনা করিয়াছ। কৃষ্ণদাস বাবুর সঙ্গে আমার জানাশুনা আছে। আমি তোমাকে সঙ্গে করিয়া লষ্টয়া বলিয়া দিয়া আসিব। তিনি প্রাচীন, আর বড় ভাল মানুষ ।” - ব্রাহ্মণ আমাকে কৃষ্ণদাস বাবুর কাছে লইয়া গেলেন। ব্রাহ্মণ কহিলেন, "এটি ভদ্রলোকের কন্যা। বিপাকে পড়িয়া পথ হারাইয়া এ দেশে আসিয়া পড়িয়াছেন। আপনি যদি ইহঁাকে সঙ্গে করিয়া কলিকাতায় লইয়া যান, তবে এ অনাথিনী আপন পিত্রালয়ে পহুছিতে পারে।” কৃষ্ণদাস বাবু সন্মত হইলেন। আমি র্তাহার অস্তঃপুরে গেলাম। পরদিন তাহার পরিবারস্থ স্ত্রীলোকদিগের সঙ্গে কলিকাতা যাত্রা করিলাম। প্রথম দিন চারি পাচ ক্রোশ স্থাটিয়া গঙ্গাতীরে জাসিতে হইল । পর দিন নৌকায় উঠিলাম। " কলিকাতায় পহুছিলাম। কৃষ্ণদাস বাৰু কালীঘাটে পূজা দিতে জাসিয়াছিলেন। ভবানীপুরে বাসা করিলেন। - অামাকে জিজ্ঞাসা করিলেঞ্জ, “তোমার খুড়ার বাড়ী কোথায় ? কলিকাতায় না তৰানীপুরে ?”