পাতা:ইন্দিরা-বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/৯৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পাঠভেদ »ፋ যৌবন প্রাপ্তির পর আমার এই প্রথম স্বামিসম্ভাষণ । সে যে কি মুখ, তাহা কেমন করিয়া বলিব ? আমি অত্যন্ত মুখরা-কিন্তু যখন প্রথম র্তাহার সঙ্গে কথা কহিতে গেলাম, কিছুতেই কথা ফুটিল না। DDDD DDD DBBB BBBBS BBD BBBB BBBS BBBBB BBBB BB DDB BBB S রসন শুকাইতে লাগিল । কথা আসিল না বলিয়া আমি কাদিয়া ফুেলিলাম । সে অশ্ৰুজল তিনি বুঝিতে পারিলেন না। তিনি বলিলেন, “কাদিলে কেন ? আমি ত তোমাকে ডাকি নাই—তুমি আপনি আসিয়াছ—তবে কঁাদ কেন ?" এই নিদারুণ বাক্যে বড় মৰ্ম্ম পীড়া হইল, তিনি যে আমাকে কুলটা মনে করিতেছেন—ইহাতে চক্ষের প্রবাহ আরও বাড়িল । মনে করিলাম, এখন পরিচয় দিই—এ যন্ত্রণা আর সহ হয় না। কিন্তু তখনই মনে হইল যে, পরিচয় দিলে যদি ইনি না বিশ্বাস করেন—যদি মনে করেন যে, “ইহার বাড়ী কালার্দীঘি, অবষ্ঠ আমার স্ত্রী হরণের বৃত্তান্ত শুনিয়াছে, এক্ষণে ঐশ্বৰ্য্য লোভে আমার স্ত্রী বলিয়া মিথ্যা পরিচয় দিতেছে” —তাহা হইলে কি প্রকারে ইহার বিশ্বাস জন্মাইব ? সুতরাং পরিচয় দিলাম না। দীর্ঘ নিশ্বাস ত্যাগ করিয়া, চক্ষের জল মুছিয়া, তাহার সঙ্গে কথোপকথনে প্রবৃত্ত হইলাম। অন্যান্ত কথার পরে তিনি বলিলেন, “কালাদীঘি তোমার বাড়ী শুনিয়া আমি আশ্চর্যা হইয়াছি। কালাদীঘিতে যে এমন স্বন্দরী জন্মিয়াছে, তাহা অামি স্বপ্নেও জানিতাম না। আমাদিগের দেশে যে এমন সুন্দরী জন্মিয়াছে, তাহা এখনও আমার বিশ্বাস হইতেছে না।” আমি নেকী সাজিয়া বলিলাম, “আমি মুনারী না বান্দী। অামাদের দেশের মধ্যে আপনার স্ত্রীরই সৌন্দর্য্যের গৌরব।” এই ছল ক্রমে তাহার স্ত্রীর কথা পাড়িয়াই জিজ্ঞাসা করিলাম, “উহার কি কোন সন্ধান পাওয়া গিয়াছে ?” উত্তর। না –তুমি কত দিন দেশ হইতে আসিয়াছ ? আমি বলিলাম, “আমি সে সকল ব্যাপারের পরেই দেশ হইতে আসিয়াছি। তবে বোধ হয়, আপনি আবার বিবাহ করিয়াছেন।” উত্তর । না । সপত্নী হয় নাই, শুনিয়া বড় আহ্লাদ হইল। বলিলাম, “আপনারা যেমন বড় লোক, এটি তেমনি বিবেচনার কাজ হইয়াছে। নহিলে যদি এর পরে আপনার স্ত্রীকে পাওয়া যায়, তবে দুই সতীনে ঠেঙ্গাঠেঙ্গি বধিবে I* তিনি মৃদ্ধ হাসিয়া বলিলেন, “সে ভয় নাই। সে স্ত্রীকে পাইলেও আমি আর গ্রহণ করিব, এমত বোধ হয় না। তাহার আর জাতি নাই, বিবেচনা করিতে হইবে।” আমার মাথায় বজ্ৰাঘাত হইল। এত আশা ভরসা সব নষ্ট হইল। তবে আমার পরিচয় পাইলে, আমাকে আপন স্ত্রী বলিয়া চিনিলেও, আমাকে গ্রহণ করিবেন না! আমার এবারকার নারী জয় नृथग्नि शहैंण । * সাহস করিয়া জিজ্ঞাসা করিলাম, “যদি এখন তাহার দেখা পান, তবে কি করিবেন r ృతి