পাতা:ইন্দুমতী - যতীন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায়.pdf/১২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ইন্দুমতী । ayaasabaya ~M, NM-M পতির বয়স পঞ্চ বিংশতি বৎসর, বিংশতি এখন পূর্ণ হয়নি ইন্দুর। উভয়ের করে কর, চাহি পরস্পর পরস্পর মুখ পানে। গবাক্ষ বাহিরে, চকিত নয়নে কভু, প্ৰলয় করাল ছায়া দেখি চারিদিকে, অর্থ পূর্ণ দৃষ্টি कनिष्छभ বিনিময়। কহিলেন ইন্দু, নৈরাশ কাতর স্বরে ‘উপায় এখন ?” সরিল না কথা আর । ধীর স্থির চিত্তে কহিতে লাগিল পতি৷-“ভগবান একমাত্র উপায় এখন, আর নাহি অন্যোপায়। তঁর পদে করা এবে আত্ম-সমাপণ । হয়োনা কাতর তুমি, জন্মিলে মরণ, অবশ্য হইবে জনে, আজি নহে কাল । সংসার কেবল মায়া, অলীক সকল, এই আছে এই নাই। এই যে দেখিছ, ভীষণ হুঙ্কারে বড় প্ৰলয়ের খেলা, খেলিছে সলিল সাথে, দুলায়ে তরণী উন্নত তরঙ্গ শিরে, সবেগে আছাড়ি, ইহাও অলীক, আর কিছুক্ষণ পরে, রহিবে না চিহ্ন তার প্রকৃতি উপরে। প্ৰকৃতি যেমন ছিল রহিবে তেমনি ।