পাতা:ইন্দুমতী - যতীন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায়.pdf/১৬৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
১৪৯
দ্বিতীয় খণ্ড—ষষ্ঠ সর্গ।

নবীন বলিল চাহি দেবব্রত প্রতি
আপন রোগের সেই যাতনা অপার;
বলিলেন আর নাহি বাঁচিবার আশা
হ’বে না রোগের তাঁ’র কোন প্রতিকার।

করিয়া ভবের খেলা শেষ তিনি সব
মরণের দ্বারে আসি এবে উপস্থিত;
ত্বরায় লইতে হ’বে অনন্ত বিদায়
তবু কেন কাঁদে প্রাণ মমতায় এত?

নবীন বলিল তাঁ’র দীর্ঘ পীড়া হেতু
প্রতিপ্রাণা রাধালতা শুকাইয়া যায়;
এত ভালবাসে রাধা,কেন তিনি আগে
বুঝিতে পারেন নাই হায় হায় হায়।

দেবব্রত কিন্তু তাহা বুঝিল সকল
ভাবিল সংসার কিবা প্রতারণাময়;
অন্তরে বাহিরে কত অনন্ত প্রভেদ,
বাহিরের রূপ কিবা পূর্ণ ছলনায়।

মাদকতা মোহপূর্ণ বাহিরের রূপ
মানব জগতে মধ্য-আকর্ষণ প্রায়;
রূপেতে আকৃষ্ট সবে রূপেতে পাগল,
অন্তর কাহার কেহ বুঝিতে না চায়।