পাতা:ইন্দুমতী - যতীন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায়.pdf/২০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
১০
ইন্দুমতী।

ইন্দুমতী - যতীন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায় (page 14 crop).jpg

মুক্ত বাতায়ন পথে বহু দূর হ’তে।
অলিন্দ সম্মুখে এক বিস্তৃত প্রাঙ্গণ-
বেষ্টিত প্ৰাচীরে উচ্চ উত্তর দক্ষিণ।
নানাবিধ পুষ্প বৃক্ষ সযত্নে রোপিত।
বিচিত্র পল্লব আৰু কুসুম স্তবক,
সুশোভিত চন্দ্রালোকে। প্ৰাঙ্গণ মাঝারে,
স্থাপিত রমণী মুর্ত্তি খোদিত মৰ্ম্মরে।
কি সুন্দর মুৰ্ত্তি আহা! কি সজীব ভাব
ভাস্কর দিয়াছে তারে! ওষ্ঠপুট যেন
চাহে কথা কহিবারে! যুড়ি দুই কর
চাহে ত্ৰিদিব পানে ডাকিছে ঈশ্বরে।
কৃত্রিম নির্ঝর হতে ঝর ঝর ধারে
সলিল ঝরিছে পদে। ধৌত করি পদ,
বেদী মুলাধারে জল হতেছে সঞ্চিত।
তথা হতে ধীরে ধীরে যায় আলবালে।
লোহিত সুন্দর বর্ত্ম, মৰ্ম্মর বেদিকা,
প্রাঙ্গণের মাঝে মাঝে। পুর্ব্ব প্রান্তে আছে
লৌহের সুন্দর বেড়া, প্রস্তর সোপান,
তথা হতে স্তরে স্তরে গিয়াছে নামিয়া,
গৈরিক সলিলা গঙ্গা তলদেশে তা’র।
 তথায় করেন বাস “রাণী মা” নামেতে,
রাজার দুহিতা এক বনিতা রাজার।