পাতা:ইসলামী ধর্মতত্ত্বঃ এবার ঘরে ফেরার পালা.pdf/২১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।

ইসলামী ও অংশীবাদ

১৯

 সেই রকম প্রধানত তিনটি কারণে খ্রীস্টানরা অংশীবাদী কাফের। প্রথমত তার বলে যে যীশু বা ঈশা আল্লার পুত্র। কিন্তু কোরানে আল্লা অত্যন্ত স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিয়েছেন যে তার কোন স্ত্রী নেই (৬/১০১)। কাজেই তাঁর কোন সন্তান থাকতে পারে না (৪/১৭১, ২/১১৬, ১৭/১১১, ১০/৬৮, ২৩/৯১ ইত্যাদি)। দ্বিতীয়ত তারা ঈশা ও মা মরিয়ম (মেরী)'র মূর্তি পূজা করে আল্লার অংশী সৃষ্টি করছে। তৃতীয়ত আল্লা তাদের যে ইঞ্জিল[১] কেতাব দিয়েছেন তাতে বিয়ে-সাদী না করে সাধু হবার কোন নির্দেশ নেই। কিন্তু ঘর সংসার না করে সাধু হয়ে তাদের পাদ্রীরা আল্লার সীমা লঙ্ঘন করছে। উপরন্তু, তওরাৎ ও ইঞ্জিল, উভয় কেতাবেই আম্লা বলেছেন যে, আরবে সর্বশেষ নবীর অবির্ভাব হবে।[২] কাজেই ইহুদী ও খ্রীস্টানদের উচিত আল্লার নির্দেশমত মহম্মদকে নবী বলে স্বীকার করা, প্রেরিত আসমানী কেতাব কোরানে বিশ্বাস স্থাপন করা এবং ইসলাম কবুল করা। কিন্তু তারা তা না করে আল্লার সীমা লঙ্ঘন করছে।


  1. ইংরাজী Evangel.
  2. Deuteronomy-(18/15)