পাতা:ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্তের জীবনচরিত ও কবিত্ব.djvu/১৩৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কবিতাসংগ্ৰহ । সদাননা শিবময়, তুমি মাত্র সার হে ॥ কেহ নাই তব সম, প্রাণাধিক প্রিয়তম, মানসমন্দিরে মম, করহ বিহার হে । সবে ভাবে অপরূপ, বিরূপ কিরূপ ৰূপ, স্বরূপে স্বরূপ রূপ, ধর একবার হে ॥ মমোময় রূপ দেখে, অস্তরে বাহিরে রেখে, নিরন্তর ঢেকে রেখে, ময়নের দ্বাৰ হে ॥ সকলে তোমায় কয়, নিরাকার নিরাময়, আমি দেখি মনোময়, তোমার আকার হে ॥ কতরূপ কতরূপ : দেখিতেছি যতরীপ, তাবতেই তবরপ, রোয়েছে প্রচার হে ॥ দেখে এই ভবরূপ, না দেখে যে তব রূপ, হায় একি অপরূপ, বৃথা জন্ম তার হে ॥ অচল সচলচয়, রূপ শোভা যত হয়, नकरनब्रि नग्नाभग्न, छूमि মূলাধার হে ] তোমার বিভাস তায়, যদি না প্রকাশ পায়, একে একে সমুদয়, হয় অন্ধকার হে। কেমন মনের ভুল, জীব সব বুঝে স্থূল, ভব-মূল, তব মুল, বোধ আছে কার হে ? না চিনিয়া আপনায়, তোমায় চিনিতে চায়, সীতারে কি হওয়া যায়, পারাবার পার হে ? মিছে কাল হরিলাম, মিছে ভাৰ ধরিলাম, 8>