পাতা:ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্তের জীবনচরিত ও কবিত্ব.djvu/১৭৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


في سb কবিতাসংগ্ৰহ । পাত্র হয়ে পাত্র লয়ে ঢোলে মারি চাটি। ঝোলমাখা মাস নিয়া চাটি কোরে চাটি ॥ টুকি টাকি টুক্ টুকু মুখে দিই মেটে । যত পাই তত খাই সাধ নাহি মেটে ॥ ঝোলের সহিত দিলে গোটা গোটা আলু। লক্ লক লোলে লোলে জিব হয় লালু। সাবাস সাবাস রে সাবাসী তোরে অজা । ত্ৰিভুবনে তোর কাছে নিছু নাই মজা ॥ কোন অংশে বড় নয় কেহ তোর চেয়ে । এত গুণ ধরিয়াছ পাতা ঘাস খেয়ে ॥ মহতের কার্য্য কর গরিবান চেলে । ন জানি কি হোতে আরো ঘৃত ক্ষীর খেলে বিশেষ মহিমা তব কি কব জবানী । জানেন কিঞ্চিৎ গুণ ভাড়ে মা ভবানী ॥ বৃথায় তিলক ধরে ছাঁই ভস্ম খেয়ে । কসাই অনেক ভাল গোসায়ের চেয়ে ॥ পরম বৈষ্ণবী যিনি দক্ষের দুহিতা । ছাগ-মাংস-রক্তে তিনি সদাই মোহিতা ॥ ছলে এক মন্ত্র বলি বলিদান লোয়ে । খান দেবী পিতৃ-মাতা বিশ্বমাতা হোয়ে ॥ দক্ষযজ্ঞে প্রাণ ত্যজি খণ্ড খণ্ড হোয়ে । করিলেন ভুষ্টিনাশ কালীঘাটে রোয়ে ॥