পাতা:ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্তের জীবনচরিত ও কবিত্ব.djvu/২০৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ఫి কবিতাসংগ্ৰহ আম্বা খাই শুধু মোটা, নাহি ঘর কোটা, বেঁচে যাই মোটা, খেতে পেলে ॥ শুধু চাল বলে নয়, দ্রব্য সমুদয়, বিকাতেছে সব অগ্নিমূলে । দর বেড়েছে চার গুণ, বিধাতা বিগুণ, খাবার দ্রব্যে দিলে আগুন জেলে । তেল, ঘৃত, দুগ্ধ, চিনি, কেমনেতে কিনি, শস্তাদরে নাহি কিছুই মেলে। যত পেটের দরকারি, মাচ তরকারি, কিনে খাই টাকা হাতে এলে ৷ শুনে জিনিষের দর, গায়ে আসে জ্বর, ছুটে যাই ঘর বাড়ী ফেলে। ভয়ে কথা নাছি কই, অবাক ছোয়ে রই, কাটের মুরুদ বনি হাটে গেলে। ঘরে না থাকিলে কাট, করি কাট কাট, নিজে হই কাট, চক্ষু তুলে। ছেলের বস্ত্র নাহি গায়, শীতে মারা যায়, চাপড় মারি বুকে, কাপড় চেলে। যেতাম যেখানে সেখানে, কেবা কারে মানে, হোতো না যাতনা, একলা হোলে । দেখে দুখের বাড়াবাড়ী, ফিরি বাড়ী বাড়ী, মাথায় পড়ে বাড়ী, কুটুম এলে ॥