পাতা:ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্তের জীবনচরিত ও কবিত্ব.djvu/২৭৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


>br8 কবিতাসংগ্ৰহ । ব্রাহ্মণ পণ্ডিত-পুত্র, গলে মাত্র যজ্ঞস্থত্র, মোটা ফেঁাটা কথা রুকে রুকে । ছলেতে হবেন মান্য, “হরিদ্র গোরস ধান্য", ইত্যাদি কবিতা পাঠ মুখে ॥ বিদ্যা সাধ্য অষ্টরম্ভ, বড় বড় কথা লম্বা, হতভোম্বা ভঙ্গী পরিপাটী । বচনেতে দাম নাই, মুখে শুধু বামনাই, মেকি কি কখন হয় খাট ৪ প্রতিবারে করি দান, না দিলে থাকে না মান, দেনা করি খত দেন লিখে । শিষ্ট শাস্ত অতি ধীর, স্তুতি বাক্যে বাবুজীর, ল্যাজ উঠে আকাশের দিকে ॥ নাকে খত কাণে খত, ছনো স্বদে লিখে খত, আপাতত দূর করে দুখ । সুখের শরত কালে, বদ্ধ হয়ে ঋণজালে, তথাচ অস্তরে হয় সুখ ॥ যত ব্যাটা ভবঘুরে, নূতন নুতন স্বরে, নূতন নূতন শিখে গান। সাধিতে গলার মিল, কেহ খাদ কেহ জীল, কেহ শুদ্ধ নুপুর বাজান । মরীচ লবঙ্গ রঙ্গে, লোয়ে যায় সঙ্গে সঙ্গে, যথা যথা আকড়া যাহার।