পাতা:ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্তের জীবনচরিত ও কবিত্ব.djvu/২৭৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কবিতাসংগ্ৰহ । কালোয়াৎ ভঁাজে রাগ, কে বুঝে সে অনুরাগ, রাগ নয় রাগমাত্র সার ॥ সেতার বাজায় যত, সে তার কহিব কত, সেতার বেতার কার লাগে ? পিড়িং পিড়িং রার রীরা, সারিগামা ডার। ডারা, মেজরিপে বাজে নানা রাগে ৷ তাধিনা তাধিন ধিনা, কত প্রাগে বাজে বীণা, বীণ বিনা কিছু নহে ভালো । গুনিয়া বীণার স্বর, লজ্জা পায় পিকবর, মনে জলে আনন্দের আলো ॥ সকলের এক বোল, লেগেছে পূজার গোল, পড়েছে ঢলির ঢোলে কাটি । তাধিন তাধিন রব, শুনিয়া মাতিল সব, চাটি শুনে ফেটে যায় মাটী ৷ নবতের বড় ধুম, গুড়, গুড় গুম্‌ গুম, ভো ভো ভো ভে বাজিছে সানাই । মন্দিরে আমোদ ভরা, মন্দিরে মোহিত করা, . তালে তালে তাল ধরে তাই ॥ এইরূপ মহানন্দ, श्रांनान् श्ब्रां श्रक, তামসিকে ধনী ছাড়ে চাকি । পূজার না লন খোজ, মাছি কাদে তিনরোজ, পুরুতের দক্ষিণায় ফাকি ॥