পাতা:ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্তের জীবনচরিত ও কবিত্ব.djvu/২৮০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


سومالا কবিতাসংগ্ৰহ । ব্রাহ্মণ পণ্ডিত যারা, বার্ষিক সাধিয়া তারা, ব্রাহ্মণীর শাড়ী আগে লন । সুসার হইলে তায়, শেষে পুত্র বস্ত্র পায়, আপনার জন্যে দুঃখী নন ॥ দাতার গাহিয়া জয়, ভট্টাচার্য্য মহাশয়, নস্ত ছলে মিসি লন কিনে । পুতির ভিতরে ভরি, শ্ৰীহরি স্মরণ করি, বাড়ী চোলে যান দিনে দিনে ॥ প্রায় বৎসেরের পরে, প্রবাসির যান ঘরে, কত সাধ মনে অগণন । হয়ে প্রেম-অনুরাগী, করেন প্রিয়ার লাগি, নামামত দ্রব্য আয়োজন ॥ কেহ লয় সাতনলী, দেখিয়া আমরা বলি, কামকিরাতের সাতনলা । প্রকাশিতে নিজ স্নেহ, বিজট লইল কেহ, কেহ বা লইল কানবালা ॥ কেহ লয় কর্ণফুল, কেহ বা কনক-দুল, কেহ বা বিনোদ চন্দ্রহার । কেহ বা মুকুতা-মালা, কেহ বা কাঞ্চনবালা, কিনে লয় শক্তি যে প্রকার ॥ ভূষণ লইল যত, বসন তাহার মত, মনোমত লইল সবাই ।