পাতা:ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্তের জীবনচরিত ও কবিত্ব.djvu/২৯৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কবিতাসংগ্রহ । নিরখিয়া সেই ভাব, কত কত নব ভাব, গুহইতেছে অস্তরে আরোপ ॥ রেমন অস্তিমকালে, ঘেfর প্রিয় মহীপালে, মহিষীর শ্রেণী করে শোক । কেহ পড়ে ভূমিতলে, কেহ সিক্ত অশ্রুজলে, কেহ শূন্ত দেখে তিনলোক । অবোধ শোচনা মাত্র, কেলা কার প্রিয়পাত্র, সকলের এক দশা শেষ । জীবনে দিবস কয়, এক অঙ্গে গত হয়, যথা বনে বিহঙ্গ প্রবেশ ॥ ভোগ ফুরাইলে আর, বন পক্ষী কেবা কার, একবারে বিষয় বিচ্ছেদ । অতএব বৃথা খেদ, বৃথা অশ্রু বৃথা স্বেদ, কালের নিকটে নাই ভেদ ॥ o - দেখহ নক্ষত্ৰকুল, পক্ষশোকে স্থলে ভুল, বিলাপেতে বিষম ব্যাকুল । কিন্তু তারা প্রতিক্ষণে, দিবাগমে জনে জনে, কালগ্রাসে হতেছে নিৰ্ম্মল । উঠিলেন দিবাকর, ঢল ঢল কলেবর,

  • বিমল অনল প্রভাধর । প্রেমিকের মনে যেন, নবপ্রেম দীপ্তি হেন,

ধিকি ধিকি উঠে নিরস্তুর ॥ ծե ミe@r