পাতা:ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্তের জীবনচরিত ও কবিত্ব.djvu/৩০৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কবিতাসংগ্ৰহ । বিষম প্রৰল হিম, যে জন সাক্ষাৎ ভীম, স্পর্শমাত্রে হরে তার জ্ঞান ৷ সন্ন্যাসী মোহন্ত যত, মাঠে ঘাটে শত শত, মুহনী গাঞ্জার দম নিয়}। ছাই ভস্মে লোম ঢাকে, বম্ বম্ মুখে হঁাকে, - পোড়ে থাকে বুকে হাত দিয়া । ८रुड़े छन ज्राश्राक्ष्ब्ल, গদ্বী পাতা পাক ঘর, সদা সঙ্গে সুরত-রঙ্গিণী । ठाiशंद्र ठांश्ॉन्न भड, বিহার বিবিধ মত, তাহারে জীবন মুক্ত গণি ॥ ধনির শরীরে সাঙ্গ, গরিবের পক্ষে শাল, কম্বল সম্বল করি রয় । বেণের পুটুলি হোয়ে, শুয়ে থাকে শীত সোয়ে, ऎठम् दिन।। सूतः नाश् िश्झ ॥ চিরজীবি ছেঁড় কাথ,* সৰ্ব্বক্ষণ বুকে গাথা, একক্ষণ তারে নাহি ছাড়ে । শয়নের ঘর কঁচি, তার হয় প্রাণে বঁচি, জাড় তার বিন্ধে হাড়ে হাড়ে ॥ সকালে থাইতে চায়, আয়োজনে বেলা যায়, সন্ধ্যাকালে খায় ভাতে ভাত । শীতের কেমন খড়ি, खेड़ांग्न स्रष्ध्रब्र थक्लेि, , ফাটায় সবার পদ হাত ॥