পাতা:ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্তের জীবনচরিত ও কবিত্ব.djvu/৩১৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


९२९ কবিতাসংগ্রহ। বড় বড় বলবান, বৌদ্ধ যোদ্ধা যত । ভূমিতলে নিদ্রাগত, জনমের মত ॥ লিখিতে উদয় দুঃখ, লেখনীর মুখে। সেলের মৰুণ গুনি, শেল ফুটে বুকে ॥ এডিকম্প ছেড়ে কেম্প, অস্ত্র ধরি বলে । মরিল শীকের হস্তে, সমরের স্থলে ॥ হায় হায় এই দুঃখ, কিসে হবে দুর। ব্রিটিসের রক্ত খায়, শৃগাল কুকুর! স্বামির মরণ শুনি, বিবিলোক র্যার । নিয়ত নয়ন-মেঘ, বহে শোকধারা ॥ ঐযুতের মনে মনে, অতিশয় ক্ৰোধ ॥ অবশু হইবে তার, হিংস পরিশোধ ॥ নিশ্চয় মরিবে রণে, সমুদয় শীক। ধৰ্ম্মরাজ খাতা খুলে, কষিবেন ঠিক ॥ অমর সমরকল্পে, ব্রিটিসের সেনা । পিপীড়ার মৃত্যু হেতু, উঠিয়াছে ড়েন ॥ লইতে লাহোর রাজ্য, হেনরির কোপ । নিৰ্ভয়েতে যোদ্ধা সব, কর ভাই হোপ } শতলজ পার হয়ে, জোরে ছাড় তোপ। উড়ে যাক শাকমুগু, পুড়ে যাক গোপ । বিপক্ষের পরাক্রম, সব করি লোপ । শতক্রতে স্নান করি, গায়ে মাখ সোপ ॥