পাতা:ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্তের জীবনচরিত ও কবিত্ব.djvu/৩৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


২২ ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্তের জীবনচরিত। {ऽम न! ।। ५५न एशउ (ज उ्षॆ। {उमम मरेि।। ५१म মরস্বতী কতকট আপনার বলে বলবতী ; অনেক সময়েই আপনার বলেই পদ্মবনে ধাড়াইয়া বীণা ঝঙ্কার দিতে ছেন দেখিতে পাই। হয়ত দেখিতে পাই, দুই জনে একাসনে বসিয়াই মুখ সচ্ছন্দে কাল যাপন করিতেছেন— সতীনের মত কোন্দল কাঁকড়া নাক কাটাকাটা কিছু নাই ; অনেক সময়ে দেখি সরস্বতী আসিয়াছেন দেখিয়াই लक्री আসিয়া উপস্থিত হন। কিন্তু যখন ঈশ্বর গুপ্ত সরস্বতীর আরাধনায় প্রথম এরত্ত, তখন সে দিন উপস্থিত হয় নাই। লক্ষীর একজন বরপুত্ৰ উছার সহায় হুটলেন । লক্ষী সরস্বতীকে হাত ধরিয়া তুলিলেন। যোগেন্দ্রমোহন ঠাকুর, ঈশ্বরচন্ত্রের কবিত্ত্বশক্তি এবং রচনাশক্তি দর্শনে এই সময়ে,অৰ্থাৎ ১২৩৭ সালে বাঙ্গাল ভাষায় এক খানি সংবাদ পত্র প্রচার করিতে অভিলাষী হয়েন। ইহার পূৰ্ব্বে ৬ খানি মাত্র বাঙ্গাল সংবাদপত্র প্রকাশ হুইয়াছিল । । (১) “বাঙ্গাল গেজেট”—১২২২ সালে গঙ্গাধর ভট্টघ्री कर्पुक aको श्छ। हेशरे “ aशझै शुक्राल ংবাদপত্র। (২) “সমাচার দর্পণ”-১২৪ ফুলে ঐরামপুরে মিশনারিদিগের দ্বারা প্রকাশ হয়। (৩) ১২২৭ _আল্ল রাজা রামমােহন রায়ের উদ্যোগে "সংবাদকৌমুদী ” প্রকাশ হয়। (৪) ১৯২৮ সালে “সমাচার