পাতা:ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্তের জীবনচরিত ও কবিত্ব.djvu/৪০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


२४ जेचब्रक्वट्झ ७८ ॐद्ध औदबकब्रिङ । किहूँ नि अबहान कब्रिङ्ग, ७कजन अङि र°छिङ झर्रोग्न मिकछे उत्प्लांनि त्रशाङ्गन क८इन ! ७द९ ऊांशंद्र किङ्गनश* বঙ্গভাষায় সুমিষ্ট কবিতায় অনুবাদও করিয়াছিলেন।” ०२४० गां८लग्न वर्णां५ भां८ग भेषंद्रष्टा कफेक इरे८ङ কলিকাতায় প্রত্যাগমন করেন । তিনি কলিকাতায় আসিয়াই প্রভাকরের পুনঃ প্রচার জন্য চেষ্টিত হয়েন। উাছার সে বাসনাও সফল ছয় । ১২৫৩ সালের ১ল। বৈশাখের প্রভাকরে . ঈশ্বরচন্দ্র, প্রভাকরের পূর্বৱত্তান্ত প্রকাশ স্বত্রে লিখিয়া গিয়াছেম, " ১২৪৩ সালের ২৭ এ শ্রবণ বুধবার দিবসে এই প্রভাকরকে পুনর্বার বীরত্রয়িক রূপে প্রকাশ করি, তখন এই গুৰুতয় কৰ্ম্ম সম্পাদন করিতে পারি, অামাদিগের এমত সম্ভাবনা ছিল না । জগদীশ্বরকে চিন্তা করিয়া এতৎ অসংসাছসিক কৰ্ম্মে প্ররত হইলে, পাতুরেঘাটানিবাসী সাধারণ মঙ্গলাভিলাষী বাৰু কানাই লাল ঠাকুর, এবং তদনুজ - বাবু গোপাল লাল ঠাকুর মৰাশয় যথার্থ হিতকারী বন্ধুর স্বভাবে ব্যয়োপযুক্ত বহুল ৰিত্ত প্রদান করিলেন, এবং অদ্যাবধি অমোদিগের অাবশুক ক্রমে প্রার্থনা করিলে উছার সাধ্যমত উপকার করিতে ক্রম করেন না। এ কারণ আমরা উল্লিখিত ভ্রাত দ্বয়ের পরোপকারিত গুণের ঋণের নিমিত্ত জীবনের স্থায়ীত্ব কাল পর্যন্ত দেহকে বন্ধক রাখিলাম।” . অপকালের মধ্যেই প্রভাকরের প্রভা আবার সমু