পাতা:ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্তের জীবনচরিত ও কবিত্ব.djvu/৯০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


৭৮ ঈশ্বরচঞ্জ গুপ্তের জীবনচৰি । छांश्tिडनं न, ¢मभद्र कूकूद्र गईंल्ला6 भांशग्न कंबैिटर्डन । ২৮৪ পৃষ্ঠায় মাতৃভাষা সম্বন্ধে যে কবিতাটি আছে, পাঠক্ষকে তাহা পড়িতে বলি। "মাতৃ সম মাতৃ ভাষা,” সৌভাগ্যক্রমে এখন অনেকে বুঝিতেছেন, কিন্তু, ঈশ্বর গুপ্তের সময়ে কে সাহস করিয়া এ কথা বলে ? " বাঙ্গালা বুধিতে পারি, ” এ কথা স্বীকার করিতে অনেকের লজ্জা হইত। অজিও मा कि कशिकाडांश थूकन अग्नरू झडविना महाशन आtइ, যাহারা মাতৃ ভাষাকে ঘৃণা করে, যে তাহার অনুশীলন করে, তাহাকেও ঘৃণা করে, এবং আপনাকে মাতৃভাষা অনুশীলনে পরায়ুথ ইংরেজিনীশ বলিয়া পরিচয় দিয়া, আপনার গৌরব বৃদ্ধির চেষ্টা পায়। যখন এই মহাত্মারা সমাজে আদৃত, তখন এ সমাজ ঈশ্বর গুপ্তের সমকক্ষ হইবার অনেক বিলম্ব আছে। দ্বিতীয়, ধৰ্ম্ম। ঈশ্বর গুপ্ত ধৰ্ম্মেও সমকালিক লোকদিগের অগ্রবর্তী ছিলেন। তিনি হিন্দু ছিলেন, কিন্তু তখনকার লোকদিগের স্তায় উপধৰ্ম্মকে হিন্দুধৰ্ম্ম বলিতেন না। এখন যাহা বিশুদ্ধ হিন্দুধৰ্ম্ম বলিয়া শিক্ষিত সম্প্রদায়ভুক্ত অনেকেই গৃহীত করিতেছেন, ঈশ্বর গুপ্ত সেই বিশুদ্ধ, পরম মঙ্গলময় হিন্দুধৰ্ম্ম গ্রহণ করিয়াছিলেন। সেই ধর্মের যথার্থ মৰ্ম্ম কি, তাহা অবগত হইবার জন্ত, তিনি সংস্কৃতে অনভিজ্ঞ হইয়াও অধ্যাপকের সাহায্যে বেদান্তাদি দর্শনশাস্ত্র অধ্যয়ন করিয়াছিলেন,এবং বুদ্ধির অসাধারণ প্রাথর্য হেতু সে সকলে যে ভাষার বেশ অধিকার জন্মিাছিল, ওঁাহার প্রণীত গদ্যে গদ্যে তাছা