পাতা:উড়িয়া স্বতন্ত্র ভাষা নহে.djvu/১৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।

(২)

 অতি প্রাচীন বেদ-ভাষাই সংস্কৃত ভাষা। প্রাকৃতিক ভাষা ও বৌদ্ধভাষা পালী, সংস্কৃত হইতে সমুৎপন্ন বা সংস্কৃতের এক অংশ। জেন্দ, ইরাণীয় ভাষার মূল ও সংস্কৃত সদৃশ। এই সকলের বিশেষ কথন এ স্থলে অনাবশ্যক ও বহুবিস্তৃতি দোষ মূলক হইবে এই হেতু তৎ সমুদায় পরিত্যক্ত হইল।

 এক্ষণে এই বিস্তৃত ভারতবর্ষে যে সকল ভাষা প্রচলিত আছে তৎসমুদায় এতাদৃশ কাণ্ড ও শাখায় পরিবর্দ্ধিত হইয়া আসিয়াছে যে, তাহাদিগকে ইহার প্রদেশ-বিভাগ অনুসারে প্রকৃতরূপে বিভাগীয় সীসার মধ্যে বিভক্ত করা বড় কঠিন। পূর্ব্বে কথিত হইল, সংস্কৃত ভাষা হইতে হিন্দী বাঙ্গালা প্রভৃতি দশ ভাষা সমুৎপন্ন হইয়াছে। হিন্দী ভাষাও মৈথিলী, মাগধী, ভোজপুরী, পাঞ্জাবী প্রভৃতি আট ভাষায় বিভক্ত দেখা যায়, ঐ পাঞ্জাবী আবার পঞ্জাবের নানা প্রদেশে নানা শাখায় বিভক্ত আছে। যাহা বাঙ্গালা নামে অভিহিত হইল, তাহার বিশুদ্ধ ভাব কলিকাতার সমীপবর্ত্তী স্থানে উপলব্ধ হয়। কলিকাতা হইতে যে প্রদেশ যতই দূরবর্ত্তী তাহাতে ততই উহার বৈপরীত্য ভাব দেখা যায়। যাহা হউক, এক্ষণে দেখা যাউক কি কি কারণে এক এল মূল ভাষার এরূপ প্রভেদ হয়।