পাতা:উড়িয়া স্বতন্ত্র ভাষা নহে.djvu/৩২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সংস্কৃত শব্দ সাহায্যরে সুসম্পন্ন হোই আছি। এহি সাধু ভাষণ মধ্যরে আর্য্যবৰ্ত্তরে বঙ্গল ও হিন্দী এfছ দুই ভাষাই প্রধান | শুদ্ধ বাঙ্গাল ভাষা কলিকাতা ও তাহার নিকটবর্তী স্থানরে শুনা যাই পারে ; কলিকাভাক যেতে দূর যিবা কু হু এ বা সালাভাষী ক্রমে ক্রযে ভেতে কদৰ্য্য কৃএ । জীহট্ট ও চট্ট গ্রাম প্রভৃতি স্থানর ভাষা এ প্রক র অপরিষ্কত, পুনি কদৰ্য্য, যে শীঘ্ৰ বোধগম ভু এ নাfছ। আসাম পুনি উড়িষ্যার বাঙ্গাল ভাষার বিস্তর রূপান্তর দেখা যাই পারে। বিশেষরে উড়িয়ামানে যে প্রকার উচ্চারণ করন্তি তহিক ছঠাত বোল হুএ সেমানন্তর ভাষা বাঙ্গালাক সম্পর্ণ পৃথক। মাত্র বাস্তবিক তাহ মুহে ; সেমানে জ্বলন্ত শব্দ ব্যবস্কার করন্তি নাহি ; যেউ শব্দ বঙ্গভাষারে হলন্ত ব্যবহার হুএ, সোমে তাকু স্বরান্ত করি উচ্চারণ করন্তি এবং সকল কথা আতি শীঘ্র শীঘ্ৰ কহfন্ত, এই কারণক বুলা যাই ম পরে । কিঞ্চিৎ কাল উড়িয়া মানস্ক সঙ্গে কথাবার্তা কলে বোধ হুএ, যদি বা উড়িয়া বাঙ্গালী এই দুই ভাষা ঠিক এক মুহে, তথাপি সে দুই ভাষার পরস্পর অনেক ঐক্য অfছ” । বাবু ফকিরমোছন সেনাপতির ক্লত জীবন চরিতের fবজ্ঞাপনে যথা ; “এ কথা যথার্থ সটে যে, কেবল ক্রিয় মাত্র পরিবর্তন করিদেলে বঙ্গাল উড়িয়া হোই যাএ।