পাতা:ঊর্ম্মিমুখর.djvu/৫৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ও; সেই বায়োস্কোপওয়াল সাহেবের সঙ্গে দেখা হয়ে কি আনন্দই পেয়েছিলুম আজ বিকেলে । ভালো কথা—লিখতে ভুল হয়ে গিয়েচে, এই কালই বিকেলে ভাগলপুরের যতীনবাবুর মেয়ে সত্যপ্রিয়ার সংবাদ পেয়েচি ৷ ” কেবল দু-ট কষ্ট মনে রয়েচে—উষার সঙ্গে দেখা হয়নি বহুকাল— ভাব চি গরমের ছুটতে, কি পূজোর ছুটতে একবার এলাহাবাদে যাবো। আবার একদিন রাজপুরের বিন্দুদের শ্বশুর বাড়ীতে গেলুম রাধানাথ মল্লিকের লেনে। বিন্দু বড় ভাল মেয়ে, ভারি আদর্যত্ন করলে। একে ছোট অবস্থায় দেখেছিলুম–আবার দেখলুম এই বছরই প্রথম। আবার বড় মামার ছেলেগুলুকে আজ আট বছর পরে এই বছরই দেখলুম। কত বছর পরে কুসুমের সঙ্গেও দেখা হয় ১৫ই মে। রেমুদের বাড়ী আর একদিন গিয়েছিলুম। ওরা ছেলেমামুষ, ভূতের গল্প শুনে খুব খুশি ! আমায় আবার একটা লেবেঞ্চুশের কোটা উপহার দিল রেন্থ। বল্লে, আপনি আমাদের মত ছেলেমানুষ তাই এটা দিলাম আপনাকে । ওরা কাল রবিবারে চাটুর্গ চলে গেল আমি সকালে তুলে দিতে গেছলুম, ওরা ঠিকান দিয়ে চিঠি দিতে বল্পে। রেমুর তো কথাই নেই সে, জেতনকে বল্লে, আপনাকে ধন্যবাদ যে আপনি এর সনে আলাপ করিয়ে দিয়েছেন । রেকুর পত্র পেয়েছি। সে গিয়েই পত্র লিখেচে, আর তাতে লিখেচে, আমুন শীগগির একবার চাটগায়ে ? আমি আর একদিন রাজপুরে গিয়েছিল ৯ । যদুনাথ ও খুকী বলছিল, রেমু আর একদিন ওখানে গিয়েছিল বেড়াতে, সেদিন আমি ছিলাম না তাই শুধুই আমার নাম করেচে।.ওইখানে বাবা গুম:িলন, এখানে বসে বাবার সঙ্গে কত গল্প করেছিলুম...শুধুই এই সব কথাই হয়েচে । সেদিন রাজপুর থেকে ফিরবার পথে জ্যোৎস্নালোকিত প্ল্যাটফৰ্ম্মে বসে বসে কেবল এই সব ভেবেছি। আজ একটা অদ্ভুত তালজাতীয় গাছে কথা পড়লুম, নাম Microzeminar Plum «ăsăsă Tambourine méontain-4 fog হয়েচে હારે গাছ নাকি বহুকাল বাচে। এখানে ১৫০০০ হাজার বছর একটা গাছ বেঁচে ছিল সেটা ২০০ফুট উঁচু হয়। Prof Chamberlain এখানে অত উঁচু গাছ দেখে