পাতা:ঊর্ম্মিমুখর.djvu/৬৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


উৰ্ম্মিমুখর । ぐり3 বিকেলে হাটতলার এক ডাক্তারের সঙ্গে আলাপ হ’ল। ডাক্তারটা অত্যন্ত দুরবস্থাগ্রস্ত। একটা বাশের মাচায় মলিন শয্য, একখানা ভাঙা টেবিল, গোটা বিশ-পচিশ শিশি, অন্যদিকে অার একটা মাচাতে এক বস্তা তামাক। একটুখানি বসবার পরই তিনি নিজের দুঃখের কাহিনী বলতে আরম্ভ করলেন। আজ চার মাস থেকে এখানে এক পয়সা রোজগার নেই। হাটখোলার মুজিবর মিঞার দোকানে চালডাল ধার নিয়ে আজ চার পাচ মাস চলুচে। এদিকে বাড়ীতে মেয়ের বিয়ের দিন স্থির হয়েছিল চৌঠো জ্যৈষ্ঠ। টাকা যোগাড় না করতে পারায় বিয়ে ওদিনে হয়নি। তারপর বল্লেন— দেখুন এখানে একঘর বামুন আছে, বেশ বড় গাতিদার, তাদের বাড়ীর এক বে। আজ চার মাস শয্যাগত, তা মশায় একবার ডাকে না। বলে, ডাক্তার, কবিরাজ দেখিয়ে কি হবে, আমরা ফকির দেখাচ্চি । হাটখোলার এক দোকানে এক মৌলবী সাহেব আমাদের ডাকাডাকি করলেন বলে গেলাম,—এখানকার মুক্তাবে তিনি নতুন মৌলবী হিসেবে এলেচেন। মাসে বারোটা টাকা পাবেন, হাটখোলাতে একটা মুসলমানদের দরগা ধর আছে, সেখানেই আপাততঃ থাকবেন। তার মুখে মধু বাবু সাবইনস্পেক্টরের গল্প শুনলাম। মধু বাবু আমাদের কালে আমরা যে পাঠশালায় পড়তাম সেখানে গিয়ে আমায় একবার গ্রন্থ বানান জিজ্ঞেস করেছিলেন। সে ১৯০৫ সালের কথা হবে | - সন্ধ্যার পরেই বৃষ্টি এল । আমি হাটখোলা থেকে চলে এলাম। রাত্রে একটা গোয়ালার ছেলে অনেক গল্পগুজব করলে | সকালে স্নান করে পিসিমার কাছে বিদায় নিয়ে পাটুশিমলে মোহিনী । কাকার সঙ্গে দেখা করবার জন্যে রওনা হোলাম । আজ খুব রোদ উঠবে, আকাশ নীল, সকালের হাওয়ায় বিলের জল আর ধানের জাওলার গল্প। হাটখোলার ডাক্তার বাবুর সঙ্গে দেখা করে মাঠের পথে হাটি। এদেশে যেখানে সেখানে আমগাছের তলায় তলাবিছিয়ে পিটুলি ফলের মত দিব্যি বড় বড় রাঙা রাঙা আম পড়ে রয়েচে, কেউ কুড়োয় না দেখে আশ্চৰ্য্য হয়ে গেলুম। একজনকে জিজ্ঞেস করলুম-তোমাদের এখানে আম কুড়েয়ে না কেন ? সে বল্লে—বাবু, এখানে এক পয়সা আমের পণ বিক্ৰী হয়—এত আম এখানে । কে কত খাবে? পুটসলে ঢুকতেই একপাশে একটা বড় বন, একটা זכ־7 יחז stzס-הודfזאי זעזtfüל קהל ס"צל ופליה דעידה לזכ"דול חht. בלה אr f 2ה