পাতা:ঋতু-উৎসব - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ঋতু-উৎসব S8 দুই কুল আকুলিয়া অধীর বিভে নাচন উঠিল জেগে নদীর তরঙ্গে । কঁাপিছে বনের হিয়া । বরষণে মুখরিয়া, বিজলি ঝলিয়া উঠে নবঘন মন্দ্রে। আঃ, এতক্ষণে একটু উৎসাহ লাগলো। থামলে চলবে না। দেখ না, তোমাদের মাদলওয়ালার হাত দুটো অস্থির হয়েছে, ওকে একটু কাজ দাও। নটরাজ । বলি ও ওস্তাদ, ঐ যে দলে দলে মেঘ এসে জুটলো, ওরা যে ক্ষ্যাপার মত চলেছে। ওদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে চলো না, একেবারে মৃদঙ্গ বাজিয়ে বুক ফুলিয়ে যাত্রা জমে উঠুক না স্বরে, কথায়, মেঘে, বিদ্যুতে, বড় । পথিক মেঘের দল জোটে ঐ শ্রাবণ গগন অঙ্গ ন । মন রে আমার, উধাও হয়ে নিরুদ্দেশের সঙ্গ । দিক-হারানো দুঃসাহসে সকল বাধন পড়ক খসে, কিসের বাধা ঘরের কোণের শাসন-সীমা লঙ্ঘনে । বেদন তোর বিজুলশিখা জ্বলুক অন্তরে । সৰ্ব্বনাশের করিস সাধন বজ্ৰ-মস্তরে ; অজানাতে করবি গাহন, ঝড় সে পথের হবে বাহন, শেষ করে দিস আপনারে তুই । প্রলয় রাতের ক্রমদনে ॥