পাতা:ঋতু-উৎসব - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২০৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


२०१ ফাল্গুনী সে কি কথা ? সে যে ঘোর অন্ধকার ! কোনো খবর না নিয়েই একেবারে— বাউল। সে নিজেই খবর নিতে গেছে। ফিরবে কখন ? তুইও যেমন ? সে কি আর ফিরবে ? কিন্তু চন্দ্রহাস গেলে আমাদের জীবনের রইলো কি ? আমাদের সর্দারের কাছে কী জবাব দেবো ? এবার সর্দারও আমাদের ছাড়বে। যাবার সময় আমাদের কী বলে গেলো সে ? বাউল। বল্পে আমার জন্যে অপেক্ষ কোরো, আমি আবার ফিরে আসবো। ফিরে আসবে ? কেমন করে জানবো ? বাউল। সে তো বল্পে, আমি জয়ী হ’য়ে ফিরে আসবো । তাহলে আমরা সমস্ত রাত অপেক্ষা করে থাকবো । বাউল, কোথায় আমাদের অপেক্ষা করতে হবে ? বাউল। এই যে গুহার ভিতর থেকে নদীর জল বেরিয়ে আসচে এরি মুখের কাছে । ঐ গুহায় কোন রাস্ত দিয়ে গেলো? ওখানে যে কালো খাড়ার মতে অন্ধকার ! & বাউল । রাত্রের পার্থীগুলোর ডানার শব্দ ধরে গেছে। তুমি সঙ্গে গেলে না কেন ? বাউল। আমাকে তোমাদের আশ্বাস দেবার জন্যে রেখে গেলো । কখন গেছে বলো তো ? 11 বাউল। অনেকক্ষণ—রাতের প্রথম প্রহরেই। - এখন বোধ হয় তিন প্রহর পেরিয়ে গেছে। কেমন এক ঠাও। হাওয়া । দিয়েছে—গ সির সিবু ক’বৃচে ।