পাতা:ঋতু-উৎসব - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৩৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ঋতু-উৎসব । ৩৬ মন্ত্রী। একেবারেই না । রাজা । কী সৰ্ব্বনাশ । তা হলে— মন্ত্রী। কবি বলেন, বুড়োর ছেলেদের যদি শেখাতে", তা হলে তো ছেলেরা পেকে যাবে—ছেলেই থাকবে না। সেই জন্যে ওদের নাট্য শেখানই হয় নি। কবি বলেন, সহজে খুসি হবার বিদ্যে ওদের কাছ থেকে আমরাই শিখবো । . . রাজা। কিন্তু, মন্ত্রী, সহজে খুলী হবার বিদ্যা তো পুরবাসীদের বিদ্যা নয়। এই সব হাল্কা, এই সব কাচা, এই সব না-শেখা ব্যাপারের মূল্য কি র্তাদের কাছে আছে ? মন্ত্রী। সে কথা আমি কবিকে জিজ্ঞাসা করেছিলুম্—তিনি বললেন, ওজন যার কিছু নেই তার আবার মূল্য কিসের ? হেমস্তের পাকা ধানেরই মূল্য আছে, ভাষ্ট্রের কাচা ক্ষেতের আবার মূল্য কি ? একটুখানি হাসি, একটুখানি খুসি, এই হলেই দেন পাওনা চুকে যাবে। রাজা । আচ্ছ বেশ, শুম্ভ-নিশুম্ভ তা হলে এখন থাকৃ–আস্থক ছেলের দল, আস্থক সন্ন্যাসীবেশে রাজা । তা হলে কবিকে একবার ডেকে ওনা, তার সঙ্গে একবার কথা কয়ে নিই। মন্ত্রী। তাকে ডাক্ব কি মহারাজ, তিনি নিজেই যে এই পালায় সাজচেন। রাজা বল কি, তার শিক্ষা হল কোথায় ? মন্ত্রী। তার শিক্ষণ হয়ই নি । রাজা। তবে ? সে কি হাত পা নেড়ে গলা ছেড়ে দিয়ে আসর জমাতে পারবে ? সে যে আনাড়ি । মন্ত্রী। পাছে যারা হাত পা নাড়তে শিক্ষা পেয়েচে তাদের ডাকা হয় এই ভয়েই সে নিজেই সন্ন্যাসী সাজবার ভার নিয়েছে। সে বলে, পালার বিষয়টা যেমন অনর্থক পালার নটের দলও তেমনি অশিক্ষিত ।