পাতা:ঋতু-উৎসব - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৭৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ঋতু-উৎসব १७ তুমি যেই মনে করলে আমি রাজি হ’লেম না অম্নি তাড়াতাড়ি অন্ত । অংশীদার খুঁজতে লেগে গেছে! কিন্তু এসব কি ঠাকুর্দার কৰ্ম্ম ? ওঁর পুজিই বা কী ? - lo . r" তুমি খবর পাওনি। কিন্তু একেবারে পুজি নেই তা নয়! ভিতরে ভিতরে জমিয়েছে ! . লক্ষেশ্বর (ঠাকুরদাদার পিঠ চাপূড়াইয়া) 戀 সত্যি না কি ঠাকুর্দ ? বড়ো তো ফাকি দিয়ে আসচে! তো তো f চিনতেম না ! লোকে আমাকেই সন্দেহ করে, তোমাকে তো श्रः । গজাও সন্দেহ করে না ! তা হ’লে এতদিন খানাতল্লাসী প’ড়ে যেতো তো, দাদা, গুপ্তচরের ভয়ে ঘরে চাকরবাকর রাখিনে । , , , ঠাকুরদাদা : তবে যে আজ সকালে ছেলে তাড়াবার বেলায় উৰ্দ্ধস্বরে চোবে, ওয়ারী, গির্ধারীলালকে হাক পাড় ছিলে ? . লক্ষেশ্বর যখন নিশ্চয় জানি হাক পাড়লেও কেউ আসবে না, তখন উৰ্দ্ধস্বরের জোরেই আসর গরম ক'রে তুলতে হয়। কিন্তু ব’লে তো ভালো ক’লেম না! মানুষের সঙ্গে কথা কবার তো বিপদই ঐ ! সেই জন্যেই কারো কাছে ঘেঁসি নে। দেখে দাদা, ফাস ক’রে দিয়ে না । ঠাকুরদাদা ভয় নেই তোমার । লক্ষেশ্বর ভয় না থাকলেও তবু ভয় ঘোচে কই ? যা হোক ঠাকুর, এক ঠাকুর্দাকে নিয়ে অতো বড়ো কাজটা চলবে না। আমরা না হয় তিন জনেই অংশীদার